জিসিসি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ উপকরণ বিতরণ শুরু     সিইসির সঙ্গে বৈঠকে আওয়ামী লীগ     মন্ত্রিসভায় উঠছে আজ, দক্ষ জনশক্তি তৈরিতে হচ্ছে উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ     টাঙ্গাইলে ট্রাক উল্টে খাদে পড়ে নিহত ৪     প্রস্তুত গাজীপুর রাত পোহালেই ভোট     ইসি গাজীপুর সিটিতে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন উপহার দেবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী     আঞ্চলিক যোগাযোগ জোরদার করার ওপর প্রধানমন্ত্রীর গুরুত্বারোপ     বেকার সমস্যা নিরসনে ৯ বছরে সরকারি চাকরিতে ৬,১১,১৮৪টি পদ সৃষ্টি করা হয়েছে : সৈয়দ আশরাফ    

ইসরাইলের সঙ্গে বিতর্কিত ম্যাচ বাতিল করল আর্জেন্টিনা

  জুন ০৬, ২০১৮     ২৪     ১০:০৮ পূর্বাহ্ন     ক্রীড়া
--

ক্রীড়া ডেস্ক : ফিলিস্তিনের রাজধানী পবিত্র জেরুজালেম শহরে দখলদার ইসরাইলের সঙ্গে বিতর্কিত প্রীতি ম্যাচ বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন আর্জেন্টিনার জাতীয় ফুটবল দল।

ফিলিস্তিনের গণহত্যায় ব্যবহৃত ইসরাইলের অধিকৃত টেডি স্টেডিয়ামে আগামী ৯ জুন ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু বিশ্বব্যাপী তীব্র সমালোচনা ও ফিলিস্তিনি ফুটবল ফেডারেশনের আপত্তির পরিপ্রেক্ষিতে আর্জেন্টিনার ফুটবল দল মঙ্গলবার ম্যাচটি বাতিলের ঘোষণা দেয়।

আর্জেন্টিনার ক্রীড়াবিষয়ক ওয়েবসাইট মিনুতুনো জানিয়েছে, সহিংসতা বৃদ্ধির আশঙ্কা, হুমকি ও সমালোচনার মুখে লিওনেল মেসির নেতৃত্বাধীন আর্জেন্টিনার ফুটবল দল ইসরাইলের সঙ্গে ৯ জুনের প্রস্তুতি ম্যাচটি বাতিল করেছে।

প্রথমে ইসরাইলের হাইফাতে এ ম্যাচটি হওয়ার কথা থাকলেও পরে ভেন্যু বদলে তা অধিকৃত পশ্চিম জেরুজালেমের টেডি স্টেডিয়ামে নিয়ে যাওয়া হয়।

১৯৪৮ সালে নিরপরাধ ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ করে এই স্টেডিয়ামটি তৈরি করেছিল দখলদার ইসরাইল। স্টেডিয়ামটি ফিলিস্তিনিদের গুপ্তহত্যায়ও ব্যবহার করা হতো।

এ কারণে ফিলিস্তিনিরা শুরু থেকেই এ ম্যাচটির বিরোধীতা করে আসছিলেন। তারা মনে করেন, জেরুজালেমে লিওনেল মেসির নেতৃত্বাধীন আর্জেন্টিনার খেলতে আসার অর্থ ফিলিস্তিনে ইসরাইলি আগ্রাসনের পরোক্ষ স্বীকৃতি দেয়া।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ফিলিস্তিন ফুটবল ফেডারেশনের প্রধান জিবরিল রাজুব আর্জেন্টাইন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) প্রধান ক্লদিও তাপিয়াকে লেখা এক চিঠিতে ম্যাচটি বাতিলের আহ্বান জানান।

তিনি অভিযোগ করেন, ইসরাইল খেলাকেও রাজনীতিকীকরণ করছে। তারা এমন একটি মাঠে খেলা আয়োজন করেছে, যেটি ফিলিস্তিনিদের ভূমি দখল করে বানানো। ১৯৪৮ সালে ইসরাইলি বাহিনী ফিলিস্তিনিদের গ্রাম ধ্বংস করে অধিবাসীদের উচ্ছেদ করে টেডি স্টেডিয়াম বানিয়েছিল।

জিবরিল বলেন, ইসরাইল হচ্ছে একটি দখলদার ও বর্ণবাদী বাহিনী। তারা সবসময় বৈশ্বিক মূল্যবোধ ও নীতি লঙ্ঘন করে আসছে। আর সেই মূল্যবোধ লঙ্ঘন করেই তারা এই প্রীতি ম্যাচের আয়োজন করেছে।

ফিলিস্তিনি ফুটবল ফেডারেশনের অনুরোধ সত্ত্বেও আর্জেন্টিনা তার সিদ্ধান্তে অনড় থাকায় জিবরিল আর্জেন্টিনার অধিনায়ক মেসির প্রতি আহ্বান জানান, ‘মেসি তুমি ইসরাইলে খেলতে এসো না। ইসরাইলিরা ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে যে জাতি বিদ্বেষের আগুন জ্বালিয়েছে, ইসরাইলে খেলতে এসে তার বৈধতা তুমি দিও না— এটি আমাদের অনুরোধ!’

জিবরিল আরও বলেন, ‘মেসি আমাদের কথা না শুনলে মুসলিম বিশ্বের সব তরুণকে বলব, তার ছবি ও জার্সি পুড়িয়ে ফেলতে। মেসিকে বর্জন করতে।’

মূলত ফিলিস্তিনিদের অনুরোধ, হুশিয়ারি ও বিশ্বব্যাপী সমালোচনার মুখে অবৈধ ইসরাইলি রাষ্ট্রের ৭০ বছর পূর্তির অংশ হিসেবে বিশ্বকাপের আগে পূর্বনির্ধারিত প্রস্তুতি ম্যাচটি বাতিল করল আর্জেন্টিনা।

উত্তরণবার্তা/এআর
 



পুরনো খবর