ব্রাজিলে ২৪ ঘণ্টায় ১,৩৫০ জনের মৃত্যু     করোনা : ১৫০ ভেন্টিলেটর নিয়ে রাশিয়ায় মার্কিন সামরিক বিমান     যথাযথ পদক্ষেপের ফলেই দেশের করোনা পরিস্থিতি ভালো : প্রধানমন্ত্রী     ‘স্বাস্থ্যবিধির প্রতি উদাসীনতা করোনা সংকটকে ঘনীভূত করতে পারে’     জম্মু-কাশ্মীরে গাড়িবোমা হামলার পরিকল্পনা বানচাল     করোনায় মারা যাওয়া পুলিশ ও আনসার সদস্যের পরিবারকে ১৭ লাখ টাকা দিলেন ডিএমপি কমিশনার     ট্রাম্প আমেরিকাকে বিভক্ত করার চেষ্টা করছেন : সাবেক পেন্টাগন প্রধান     যশোলদিয়া পানি শোধনাগার পরিদশনে গেলেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী    

নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসির সাজা বহাল

  জুলাই ১০, ২০১৮     ৩৬৫     ৭:০৪ অপরাহ্ণ     আইন-আদালত
--

উত্তরণবার্তা আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতে চলন্ত বাসে প্যারামেডিকেলের ছাত্রী নির্ভয়াকে (ছদ্মনাম) ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে তিনজনের ফাঁসির আদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিমকোর্ট।

এ মামলায় আগেই চার অপরাধীকে আদালত ফাঁসির সাজা দিয়েছিল। তার মধ্যে ৩ জন একটি রিভিউ পিটিশনে এ সাজার বদলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আবেদন জানায়।

সোমবার এ আর্জিই খারিজ করে ফাঁসির সাজা বজায় রাখল সুপ্রিমকোর্ট। এনডিটিভি জানায়, প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির বেঞ্চ ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত মুকেশ (২৯), পবন গুপ্ত (২২) ও বিনয় শর্মার (২৩) শাস্তির বিষয়ে রায় দিয়েছেন। ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত চতুর্থজন অক্ষয় কুমার সিং তার সাজা কমানোর জন্য কোনো আবেদন করেনি।

বাকি দুই বিচারপতি হলেন আর ভানুমতী ও বিচারপতি অশোক ভূষণ। গত বছর মে মাসে সুপ্রিমকোর্ট দিল্লি হাইকোর্টের দেয়া শাস্তি বহাল রাখেন। এরপর শাস্তি কমানোর জন্য আবেদন করে অপরাধীরা। গত বছর নভেম্বরে তাদের আবেদন শুনতে রাজি হন শীর্ষ আদালত।

দু’পক্ষের বক্তব্য শুনে রায় দেয়া স্থগিত রাখার কথা জানান সুপ্রিমকোর্ট। অভিযুক্ত ছয়জনের মধ্যে বাসচালক রাম সিং জেলেই আত্মহত্যা করে। অন্য আরেকজন অভিযুক্তের বয়স ওই ঘটনার সময় ১৮ বছরের কম হওয়ায় তাকে শিশু শোধনাগার কেন্দ্রে রাখা হয়। তিন বছর পর ২০১৫ সালের নভেম্বরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর রাত ৯টায় প্যারামেডিকেলের ওই ছাত্রী তার এক বন্ধুকে নিয়ে সিনেমা দেখে ফেরার সময় চলন্ত বাসে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হন। পরে হাসপাতালে মারা যান। ঘটনাটি ভারতজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি করলে ধর্ষণের শিকার তরুণীটি পরিচিতি পায় ‘নির্ভয়া’ নামে।

উত্তরণবার্তা/এআর



পুরনো খবর