সোমবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯
ঢাকা সময়: ১৮:০০
ব্রেকিং নিউজ

প্রদাহ ও জ্বালাপোড়া কমাতে সবচেয়ে কার্যকর এই ১২টি খাবার

প্রদাহ ও জ্বালাপোড়া কমাতে সবচেয়ে কার্যকর এই ১২টি খাবার

সালাহউদ্দীন আহমেদ আজাদ
 
জ্বালাপোড়া বা প্রদাহ, যাকে ইংরেজিতে ইনফ্লেমেশন বলা হয়, কোন রোগ নয়। প্রদাহ হয় যখন শরীরের শ্বেত রক্ত কণিকার কেমিক্যাল টিসুতে প্রবেশ করে বাইরে থেকে আগত জীবাণু ধ্বংস করতে। তাই স্বল্পকালীন প্রদাহ একদিক থেকে ভাল কারণ প্রদাহ না হলে সাধারণ জীবাণুর সংক্রমণে মানুষের মৃত্যু ঘটত। কিন্তু যখন শরীরের রোগপ্রতিরোধ–ব্যবস্থা শরীরের বিরুদ্ধে কাজ করতে থাকে, তখন প্রদাহ দীর্ঘস্থায়ী হয়, ফলে হৃদরোগ, ক্যানসার, ও আলযহাইমার্স এর মত রোগ দেখা দেয়।
 
প্রদাহ হলে মানসিক চাপ, প্রদাহ বৃদ্ধিকারি খাবার, এবং অপর্যাপ্ত শারীরিক মিথষ্ক্রিয়া এই পরিস্থিতি আরও খারাপ করে। তবে গবেষণায় দেখা গেছে কিছু কিছু খাবার আছে যা প্রদাহ কমাতে অনেক কার্যকর। এখানে দেয়া হল ১৩টি খাবারের লিস্ট যা খেলে প্রদাহ কমবে।
 
১। বেরি
স্ট্রবেরি, ব্লুবেরি, ব্ল্যাকবেরি ও র‍্যাস্পবেরিতে আছে এন্থোসায়ানিন নামক এন্টিঅক্সিডেন্ট, যাতে আছে প্রদাহ বিরোধী গুণাগুণ। গবেষণায় দেখা গেছে বেরি খেলে প্রদাহ কমে।
 
২। তৈলাক্ত মাছ
তৈলাক্ত মাছ (ইলিশ, পাবদা, স্যামন, হেরিং, ইত্যাদি) প্রদাহ কমায়। গবেষণা মতে আমাদের শরীর তৈলাক্ত মাছে থাকা ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিডকে রিজলভিন ও প্রোটেকটিন নামক কম্পাউন্ডে রূপান্তরিত করে। এসব কম্পাউন্ডে আছে প্রদাহ বিরোধী গুণ।
 
৩। ব্রকলি
গবেষণায় দেখা গেছে ব্রকলি খেলে এতে থাকা সালফোর‍্যাফেইন নামক এন্টিঅক্সিডেন্ট শরীরে প্রদাহ বৃদ্ধিকারী উপাদান সাইটোকাইন ও এনএফ-কেবি কমায়, ফলে প্রদাহ কমে।
 
৪। আভোকাডো
একটি গবেষণায় অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে এক দলকে বার্গারের সাথে এক টুকরো আভোকাডো এবং অন্য দলকে শুধু বার্গার দেয়া হয়। দেখা যায় যারা সাথে আভোকাডো খেয়েছে তাদের প্রদাহ ছিল কম।
 
৫। গ্রিন টি
গ্রিন টি শুধু স্থূলতা, হৃদরোগ, ক্যান্সার, ও আলযহাইমার্স রোগই রোধ করে না, গবেষণায় দেখা গেছে গ্রিন টি’র এন্টিঅক্সিডেন্ট ইজিসিজি প্রদাহ কমায়।
 
৬। মরিচ
কাচা মরিচ ও ক্যাপসিকামে আছে প্রচুর প্রদাহ বিরোধী এন্টিঅক্সিডেন্ট। তাই নিয়মিত মরিচ খেলে প্রদাহ কমে।
 
৭। আঙ্গুর
আঙ্গুরে আছে এন্থোসায়ানিন নামক উপাদান, যা প্রদাহ কমায়। একটি গবেষণায় দেখা যায় যেসব হার্টের রোগী প্রতিদিন আঙ্গুরের নির্যাস খেয়েছেন, তাদের প্রদাহ অনেক অংশে কমেছে।
 
৮। হলুদ
হলুদের আছে শক্তিশালী প্রদাহ বিরোধী গুণাগুণ। গবেষণায় দেখা গেছে নিয়মিত হলুদ খেলে ডায়াবেটিস, বাত, ও অন্যান্য রোগজনিত প্রদাহ কমে।
 
৯। এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল
এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল প্রদাহ কমায়। অলিভ অয়েলে থাকা ওলিওক্যান্থাল নামক এন্টিঅক্সিডেন্ট প্রদাহ কমানোর ঔষধের মতই কার্যকর।
 
১০। ডার্ক চকোলেট
ডার্ক চকোলেটের উপাদান ফ্ল্যাভানলের আছে প্রদাহ বিরোধী গুণাগুণ এবং এটা ধমনীর এন্ডোথিলিয়াল কোষগুলিকে কার্যকর রাখে। ডার্ক চকোলেটের উপকারিতা পেতে বেছে নিতে হবে ৭০% কোকো যুক্ত ডার্ক চকোলেট।
 
১১। টমেটো
টমেটোর উপাদান লাইকোপিন খুবই স্বাস্থ্যকর এবং এটা প্রদাহ বিরোধী। টমেটোর সাথে এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল মিশিয়ে খেলে উপকারিতা বেশী পাওয়া যাবে।
 
১২। চেরি
সুস্বাদু চেরিতে আছে এন্থোসায়ানিন এবং ক্যাটেচিন নামক এন্টিঅক্সিডেন্ট, যা প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। 
 
লেখক: খাদ্য, স্বাস্থ্য ও পুষ্টিবিষয়ক গবেষক 

  মন্তব্য করুন
     FACEBOOK