শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯
ঢাকা সময়: ১৮:৪৫

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের সময় জানালো ইসি

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের সময় জানালো ইসি

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের রোডম্যাপ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন(ইসি)। ২০২৪ সালের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে হবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আর ২০২৩ সালের নভেম্বরে হবে তফসীল। ১৪ সেপ্টেম্বর বুধবার সকালে রাজধানীর আগারগাঁও নির্বাচন ভবনের অডিটোরিয়ামে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের এ রোডম্যাপ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। অসুস্থ থাকার কারণে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারেননি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। তাই প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নির্বাচন কমিশনার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব.) আহসান হাবিব খান।প্রধান অতিথির বক্তব্যে কমিশনার আহসান হাবিব খান সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, রোডম্যাপ বাস্তবাযনে নূন্যতম ঘাটতি থাকলে অবশ্যই আমাদের বলবেন। আমরা আসলে কিছুটা আস্থার ঘাটতির মধ্যে আছি। তবে এতদিন কাজ করার মধ্য দিয়ে আমরা প্রমাণ করতে পেরেছি যে আগের থেকে আস্থা কিছুটা হলেও বেড়েছে। তিনি বলেন, সাংবাদিকরা হলেন আমাদের চোখ, কান। আপনাদের ওপর আমরা আস্থা রাখতে চাই।  অনেককে আমি জিজ্ঞেস করেছি আমাদের কাজের মূল্যায়ন কিভাবে করবেন? তারা বলেছেন ৯৯ দশমিক ৯৯ ভাগ আগের চেয়ে ভালো। আশা করি শেষ দিন পর্যন্ত আপনারা এটা বলতে পারবেন।   রোডম্যাপ গতানুগতিক নয়। কিছুটা ভিন্নতা আছে। তিনি আরও জানান, এবার নির্বাচনী এলাকার সীমানা পুনর্নির্ধারণ করা হবে। এজন্য আগের নীতিমালা পর্যালোচনা করে আগামী বছরের জানুয়ারিতে নতুন নীতিমালা তৈরি করা হবে।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কমিশনার বেগম রাশেদা সুলতানা সবাইকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য কমিশন সব ধরনের ব্যবস্থা নেবে। এসময় কমিশনাররা বলেন, আমাদের লক্ষ্য একটি সুন্দর ও সুষ্ঠু নির্বাচন। সেজন্য আমরা কর্মপরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছি। আমরা বিশ্বাস করি সব পক্ষ যদি সহযোগিতা করে তাহলে এই রোডম্যাপ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। ঘোষিত রোডম্যাপ অনুযায়ী, চলতি মাস থেকে নির্বাচন পর্যন্ত কী কী কার্যক্রম চলবে তা নির্ধারণ করা হয়েছে। ২০১৯ সালের ৩০ জানুয়রি একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হয়। সেক্ষেত্রে ২০২৩ সালের নভেম্বর থেকে পরের বছর জানুয়ারির মধ্যে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২০২৪ সালের ২৯ জানুয়ারির মধ্যে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন শেষ করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে।
উত্তরণবার্তা/এআর
 

 

  মন্তব্য করুন
     FACEBOOK