মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
ঢাকা সময়: ১৫:৫০
ব্রেকিং নিউজ

চিকিৎসায় বেকিং সোডার ব্যবহার

চিকিৎসায় বেকিং সোডার ব্যবহার

সালাহউদ্দীন আহমেদ আজাদ
 
গত কয়েক দিনের লেখায় আমরা বেকিং সোডার সাধারণ, গৃহস্থালী কাজে ও রূপচর্চায় ব্যবহার সম্বন্ধে আলাপ করেছি। আজ জানবো চিকিৎসার ক্ষেত্রে এর ব্যবহার। একটি সহজলভ্য জিনিষ, কিন্তু বেকিং সোডা অম্লনাশক (antacid) গুণাগুণে ভরপুর আর এতে আরো আছে অনেক ধরনের এন্টিসেপ্টিক গুণাগুণ।
 
১। পায়ের কড়া 
পায়ে কড়া হলে সেটা হাঁটাচলায় খুব সমস্যা সৃষ্টি করে এবং খুব যন্ত্রনাদায়ক হয়। গবেষণায় দেখা গেছে পানিতে বেকিং সোডা মিশিয়ে তাতে পা ডুবিয়ে রাখলে এই কড়া নরম হয় ও অস্বস্তি দূর হয়।
 
২। ক্যাঙ্কার সোর (Canker sores)
আমাদের মুখের ভেতর ঠোঁট ও মাড়িতে প্রায়ই সাদা ফোস্কার মত পরে যাকে ক্যাঙ্কার সোর বলা হয়। এটা খুবই যন্ত্রণাদায়ক। এই অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে বেকিং সোডার মাউথ ওয়াশ দিয়ে প্রতিদিন ২ বার কুলকুচা বা গার্গল করলে দ্রুতই এটা চলে যাবে। মুখের খারাপ গন্ধও দূর করবে।
 
বেকিং সোডার মাউথওয়াশ তৈরির প্রণালিঃ
এক গ্লাস উষ্ণ পানিতে এক টেবিল চামচ বেকিং সোডা ভাল করে মিশিয়ে নিয়ে মাউথওয়াশ তৈরি করুন। এতে আছে ব্যাক্টেরিয়া ও জীবাণু বিরোধী গুণাগুণ।
 
৩। গলা ব্যথা
গলা ব্যথা মুক্তি পেতে আমরা প্রায়ই এন্টিবায়োটিক খেয়ে থাকি। কিন্তু বেশী বেশী এন্টিবায়োটিক শরীরের জন্য খারাপ। বেকিং সোডা দিয়ে তিন বেলা গার্গল বা কুলকুচা করলে খুব দ্রুতই এর থেকে মুক্তি পেতে পারেন। 
 
৪। ক্যান্সারের চিকিৎসায় বেকিং সোডা
ক্যান্সারের কোষকে ধ্বংস করতে কিমোথেরাপি দেয়া হয়। এটাকে আরও কার্যকরী করতে বেকিং সোডা ব্যবহার করলে তা ক্যান্সার টিউমারের এসিডিটি কমায় এবং চিকিৎসায় সাহায্য করে।
 
৫। কিডিনি রোগে বেকিং সোডা
ক্রনিক কিডনি রোগে বেকিং সোডার সাপ্লিমেন্ট বিশেষ উপকারী। এটা রোগের প্রাদুর্ভাব কমিয়ে দেয়।
 
৬। চিকেন পক্স বা বসন্ত রোগে বেকিং সোডা
চিকেন পক্স হলে তাতে যে চুলকানি হয় তা থেকে মুক্তি পেতে ১ গ্লাস পানিতে ১/২ টেবিল চামচ বেকিং সোডা মিলিয়ে নিতে হবে। এবার ১টি টাওয়েল এই পানিতে ভিজিয়ে আক্রান্ত জায়গায় লাগাতে এবং পুরোপুরি শুকতে দিতে হবে।
 
৭। হার্ট বার্ন বা বুক জ্বালা দূর করতে
খাবার পর বুকজ্বালা বা হার্ট বার্ন খুবই কষ্টকর। বেকিং সোডায় আছে এলকালাইন পি এইচ যা বুক জ্বালা কমাতে বিশেষ কার্যকরী। এটা ট্যাবলেট হিশেবে ফার্মেসিতে পাওয়া যায়। হাতের কাছে না পেলে ১২৫ মিলিগ্রাম বা ১/২ কাপ পানিতে এক চিমিটি বেকিং সোডা মিশিয়ে পান করলে দ্রুতই আরাম পাবেন।
 
৮। ছারপোকার কামড়ে
ছারপোকার কামড়ের ফলে চামড়ায় যে লাল ছোপ পড়ে ও চুলকায় তা থেকে মুক্তি পেতে পানি ও বেকিং সোডার পেস্ট তৈরি করে ক্ষত স্থানে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। দাগ ও ব্যথা চলে যাবে। 
 
লেখক: খাদ্য, স্বাস্থ্য ও পুষ্টিবিষয়ক গবেষক

  মন্তব্য করুন
     FACEBOOK