মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ঢাকা সময়: ০০:৩৮
ব্রেকিং নিউজ

পুষ্টিগুণ ও স্বাস্থ্য উপকারিতায় ভরপুর নারকেল তেল

পুষ্টিগুণ ও স্বাস্থ্য উপকারিতায় ভরপুর নারকেল তেল

সালাহউদ্দীন আহমেদ আজাদ
 
নারকেল তেল আমরা সাধারণতঃ চুলের যত্নেই ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু শ্রিলঙ্কা ও ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে এই নারকেল তেল রান্নার কাজে ব্যবহৃত হয়। নারকেল তেলের পুষ্টিগুণ যেমন বেশী তেমনি চিকিৎসা শাস্ত্রে এর অবদান অনন্য। নারকেল তেলের বিভিন্ন ফ্যাটি এসিডের মিশ্রণ আমাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষিত রাখে। আজ আমি আপনাদের বলব নারকেল তেলের ১০টি উপকারিতা যা গবেষণায় প্রমাণিত।
 
১। নারকেল তেল স্বাস্থ্যকর ফ্যাটি এসিডে ভরপুর
নারকেল তেলে কিছু স্যাচুরেটেড ফ্যাট আছে যা শরীরের অনেক উপকারে আসে। নারকেল তেলের ফ্যাটি এসিড শরীরের মেদ ঝরাতে সাহায্য করে এবং খুব দ্রুত শরীরে ও মস্তিষ্কে শক্তি দেয়। নারকেল তেলের মিডিয়াম চেইন ফ্যাটি এসিড (এমসিটি) সরাসরি লিভারে যায় এবং শরীর এটাকে দ্রুত শক্তির উৎস হিসেবে কাজে লাগায় বা একে কিটোন (Ketone) এ রূপান্তরিত করে।
 
২। হৃদপিন্ড সুস্থ রাখে নারকেল তাল
১৯৮১ সালের এক গবেষণায় দেখা যায় টোকেলাও নামে দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরের এক গুচ্ছ দ্বীপের বাসিন্দারা তাদের মোট ক্যালরির ৬০% পেত নারকেল থেকে। ফলে সামগ্রিকভাবে তাদের স্বাস্থ্য ছিল অনেক ভাল এবং তাদের হৃদরোগ ছিল খুবই কম। পাপুয়া নিউ গিনি’র ‘কিতাভান’ গোত্রের মানুষরাও বেশী পরিমাণে নারকেল খায় এবং তাদের মধ্যে স্ট্রোক ও হৃদরোগ আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা পশ্চিমা দেশের মানুষদের তুলনায় অনেক কম।
 
৩। মেদ ঝরাতে সাহায্য করে
শুধু বেশী ক্যালরি গ্রহণ করলেই ওজন বৃদ্ধি পায় না, কোন খাবার থেকে এই ক্যালরি আসছে সেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। নারকেল তেলের মিডিয়াম চেইন ফ্যাটি এসিড (এমসিটি) শরীরে ক্যালরি খরচের গতি বাড়িয়ে দেয়। গবেষণায় দেখা গেছে ১৫-৩০ গ্রাম এমসিটি ২৪ ঘন্টায় ক্যালরি খরচের মাত্রা ৫% বৃদ্ধি করে।
 
 
৪। নারকেল তেলে আছে জীবাণু ধ্বংসকারী বৈশিষ্ট
নারকেল তেলের ফ্যাটি এসিডের ৫০% হচ্ছে লরিক এসিড (Lauric acid)। আমাদের শরীর যখন এই লরিক এসিড হজম করে তখন এটা মনোলরিন (Monolaurin) নামক উপাদানে রূপান্তর হয়। লরিক এসিড এবং মনোলরিন উভয়ই ক্ষতিকর ব্যাক্টেরিয়া, ভাইরাস, এবং ফাঙ্গাস ধ্বংস করতে পারে।
 
৫। ক্ষুধা কমায় নারকেল তেল
এমসিটি’র অন্যতম গুণ হচ্ছে এটা ক্ষুধা কমাতে সাহায্য করে। একটি গবেষণায় দেখা যায় যারা খাবারে সবচেয়ে বেশী এমসিটি গ্রহণ করেছেন তাদের ক্যালরি গ্রহণ ছিল অনেক কম। অন্য একটি গবেষণায় দেখা যায় যারা সকালের নাশ্তায় বেশী এমসিটি গ্রহণ করেছেন তারা দুপুরের খাবারে কম ক্যালরি খেয়েছেন।
 
৬। মৃগিরোগীদের খিঁচুনি রোধ করে নারকেল তেল
গবেষকদের মতে কিটো ডায়েট মৃগিরোগ আক্রান্ত শিশুদের খিঁচুনি কমাতে পারে। শর্করা জাতীয় খাবার কম খেয়ে চর্বি বেশী খেলে রক্তে কিটোনের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। নারকেল তেলের এমসিটি লিভারে যেয়ে কিটোনে রূপান্তরিত হয়। তাই গবেষকরা মনে করেন কিটো ডায়েটে নারকেল তেল অন্তর্ভুক্ত করলে ফল পাওয়া যাবে আরও ভাল।
 
৭। শরীরে ভাল কোলেস্টেরল বৃদ্ধি করে নারকেল তেল
নারকেল তেলে থাকা স্যাচুরেটেড ফ্যাট রক্তে ভাল কোলেস্টেরল (এইচডিএল) এর মাত্রা বাড়ায় এবং খারাপ কোলেস্টেরল (এলডিএল) এর মাত্রা কমায়। হৃদরোগে আক্রান্ত ১১৬ জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের উপর চালিত গবেষণায় দেখা গেছে নারকেল তেল তাদের রক্তে ভাল কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি করেছে।
 
৮। ত্বক, চুল ও দাঁত ভাল রাখে
নারকেল তেল শরীরে মাখলে তা সানস্ক্রিন হিসেবে কাজ করে এবং ত্বককে সূর্যের আল্ট্রা ভায়োলেট রশ্মি থেকে রক্ষা করে। এছাড়া নারকেল তেল মাথায় দিলে চুল ভাল থাকে এবং এটা মাউথওয়াশ হিসেবে ব্যবহার করলে দাঁত মজবুত থাকে।
 
৯। আলযহাইমার্স রোগে আক্রান্ত মানুষের মস্তিষ্কের কার্যকারিতার উন্নয়ন করে
২০০৬ সালের এক গবেষণায় দেখা যায় নারকেল তেলের এমসিটি আলযহাইমার্স রোগে আক্রান্ত মানুষদের মস্তিষ্কের কার্যকারিতার উন্নয়ন করে।
 
১০। পেটের চর্বি কমায়
পেটে চর্বি থাকা অস্বাস্থ্যকর। ১২ সপ্তাহ ব্যাপি এক গবেষণায় দেখা যায় প্রতিদিন ২ টেবিল চামচ নারকেল তেল খেয়েছে তাদের পেটের চর্বি এবং বডি ম্যাস ইন্ডেক্স কমেছে। ৪ সপ্তাহ ব্যাপি চালিত অন্য একটি গবেষণায় একই ফল দেখা যায়।
 
শেষ কথা
অন্যান্য তেলের তুলনায় নারকলে তেলের স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক। এই তেলের উপকারিতা সবচেয়ে বেশী পেতে ব্যবহার করতে হবে অর্গানিক, ভার্জিন নারকেল তেল। পরিশোধিত নারকেল তেলে উপকারিতা কম।
 
লেখক: খাদ্য, স্বাস্থ্য ও পুষ্টিবিষয়ক গবেষক

  মন্তব্য করুন
     FACEBOOK