আজ - রবিবার, ২০ মে ২০১৮, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ | ঢাকা সময়: ০৯:৫৮ অপরাহ্ন
বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলেও গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে : সেতুমন্ত্রী     ২ জুন থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট     আগামী নির্বাচনে বড় বিজয়ে আত্মবিশ্বাসী আওয়ামী লীগ     বঙ্গোপসাগরে ৬৫ দিন মাছ ধরা নিষিদ্ধ     স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করে নজির স্থাপন করেছে বাংলাদেশ: স্পিকার     বরিশালে ‘বন্ধুকযুদ্ধে’ ডাকাত নিহত     আন্তর্জাতিক একক ব্যবহার নিশ্চিত করা গেলে বাণিজ্য সহজীকরণের কাজ ত্বরান্বিত হবে : শেখ হাসিনা     একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে স্বাবলম্বী হচ্ছে গ্রামের হতদরিদ্র লাখো পরিবার    

বিশ্বকাপের ভেন্যু, লুজনিকি স্টেডিয়াম

  মে ১৫, ২০১৮     ৩৬     ১১:৫২ পূর্বাহ্ন     ক্রীড়া
--

ক্রীড়া ডেস্ক : ২০০৬ ফুটবল বিশ্বকাপের পর আবারও ইউরোপে ফিরেছে বিশ্বকাপ। সবশেষ জার্মানির পর এবার বিশ্বের জমজমাট ও বড় আসরের আয়োজক ইউরোপের আরেক দেশ রাশিয়া। দেশটির ১১টি শহরের মোট ১২টি ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্বকাপের ম্যাচগুলো।

চলছে ময়দানী লড়াই শুরুর দিনক্ষণ গননা। হাতে সময় খুব কম। তাই জোর প্রস্তুতি শুরু করেছে আয়োজক রাষ্ট্র রাশিয়া। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের আয়োজক রাশিয়া নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব জানান দেয়ার চেষ্টা করছে অভিনব সব বিশ্বকাপ ভেন্যু নির্মাণ করে। আসর শুরুর আগেই সেগুলো নিয়ে চলেছে নানা ধরনের বিজ্ঞাপন। ‘গ্রেটেস্ট শো অন আর্থে’-র ময়দানী লড়াই শুরুর আগে উত্তরণবার্তার পাঠকদের জন্য রয়েছে রাশিয়া বিশ্বকাপে মোট ১২টি ভেন্যু বিবরন:

লুজনিকি স্টেডিয়াম

এখানে শুরু এখানেই শেষ। অর্থাৎ, জমজমাট উদ্বোধনী ম্যাচ আর স্বপ্নের ফাইনাল হবে রাজধানী মস্কোর লুজনিকি স্টেডিয়ামে। পরিচ্ছন্ন বিশ্বকাপ আয়োজনে ভেন্যুটির প্রস্তুতের কাজ ইতিমধ্যেই শেষ করেছে আয়োজক রাষ্ট্র।
 
লুজনিকি স্টেডিয়াম মস্কোর প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত। ১২ মিলিয়ন মানুষের শহরে এটি যেন একখণ্ড সবুজ ক্যানভাস। ২০১৩ থেকে শুরু হয়েছে প্রস্তুতির কাজ। দর্শকধারণ ক্ষমতা ৮১ হাজার। শুরু আর শেষের লড়াইসহ এই ভেন্যুতে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে মোট ৭টি।

স্টেডিয়ামটির পূর্ব নাম ছিল সেন্ট্রাল লেনিন স্টেডিয়াম। এর নির্মাণকাজ শুরু হয় ১৯৫৫ সালে। ১৯৫৬ সালের ৩১ জুলাই স্টেডিয়ামটি চালু হয়েছিল। ১৯৬৩ সালের অক্টোবরের ১৩ তারিখ সোভিয়েত ইউনিয়ন এবং ইতালির মধ্যে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ১ লাখ ২ হাজার ৫৩৮ জন দর্শক লুজনিকি স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে উপস্থিত হয়েছিল। যা এখন পর্যন্ত স্টেডিয়ামটিতে সর্বোচ্চ দর্শক উপস্থিতির রেকর্ড।

রাশিয়ার সবচেয়ে বড় এ স্টেডিয়ামটির অবস্থান মস্কোর কামোভনিকিতে এলাকায়। ২০১৮ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে ২০১৩ সালে পুনরায় এই ভেন্যুটির সংস্কার কাজ হয়। গত বছর শেষ হয় এর কাজ। সংস্কার কাজে খরচ হয়েছে ৩৫০ মিলিয়ন ডলার। এর আগে ২০০১ সালেও সংস্কার করা হলেছিল এ স্টেডিয়াম।
 
এটি রাশিয়ার জাতীয় স্টেডিয়াম। দেশটির জাতীয় ফুটবল দলের অনুশীলনের জন্য ব্যবহৃত হয় এ স্টেডিয়ামটি। কেবল রাশিয়ারই নয়, ইউরোপের বড় স্টেডিয়ামগুলোর মধ্যেও অন্যতম হলো লুজনিকি স্টেডিয়াম। ১৪ জুন স্বাগতিক রাশিয়া এবং সৌদি আরবের মধ্যকার গ্রুপ পর্বের ম্যাচের মধ্য দিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮ এর ঘোমটা উঠবে। ফাইনাল কে খেলবে তা সময়ই বলে দিবে। লুজনিকি স্টেডিয়ামে যে কোটি কোটি মানুষের চোখ থাকবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

উত্তরণবার্তা/এআর



মিথ্যে বললেই ধরে ফেলবে মোবাইল!

  এপ্রিল ২১, ২০১৮     ১০৪৩

পুরাতুন খবর