দুদক পরিচালক বাছির কারাগারে     শ্রীলংকার নিরাপত্তায় খুশী বাংলাদেশ : তামিম     ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি জনপ্রশাসনকে মানুষের কাছে নিয়ে গেছে : মোস্তাফা জব্বার     নদী রক্ষা ও দুষণরোধে ‘বঙ্গবন্ধু নদীপদক’ প্রদান করা হবে     সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে : রাষ্ট্রপতি     প্রধানমন্ত্রীর চোখে অস্ত্রোপচার     মশার মধ্যে রাজনীতি কাম্য নয় : সাঈদ খোকন     ছেলেধরা গুজবের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি    

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হবে বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা : জয়

  এপ্রিল ২১, ২০১৯     ৩৯৮     ২:৪০ অপরাহ্ণ     শিক্ষা
--

উত্তরণবার্তা ডেস্ক : শুরু হয়েছে দুইদিনব্যাপী বিপিও সামিট-২০১৯। আজ রোববার সকালে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় প্রধান অতিথি হিসেবে বিপিও বা বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং সামিট-২০১৯ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এ সময় তিনি মন্তব্য করেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লব আসবে তার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হবে বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ এবং বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব কলসেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সের (বাক্য) উদ্যোগে  রাজধানীর হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে টানা চতুর্থবারের মতো আয়োজন করা হয়েছে এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনের।  

উদ্বোধনের সময় সজীব ওয়াজেদ জয়ের সঙ্গে ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস, আইসিটি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বিটিআরসি চেয়ারম্যান জহুরুল হক এবং বাক্য সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতি হিসেবে রয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, বিপিওসহ তথ্যপ্রযুক্তি ও অবকাঠামোগত যে উন্নয়ন গত ১০ বছরে হয়েছে তার কিছুই আগে ছিল না। এত দ্রুত এমন উন্নয়ন বিশ্বের খুব কম দেশই করতে পেরেছে, যা বাংলাদেশ করে দেখিয়ে দিয়েছে। আর এই সব আওয়ামী লীগ সরকারের কারণে হয়েছে।

বিপিও বা বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং খাতকে একটি সম্ভাবনাময়ী খাত হিসেবে উল্লেখ করে আইসিটি উপদেষ্টা বলেন, এই খাতে যেন আমাদের তরুণ তরুণীরা ক্যারিয়ার গড়তে পারে তার জন্য আমরা প্রতি বছর ৫০ হাজার শিক্ষার্থীদের আইটি, আইসিটি প্রশিক্ষণ দিচ্ছি। আর নারীদের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে এদের মধ্যে ৩০ শতাংশই নারীদের রাখা হয়েছে। এছাড়াও আলাদা করে প্রতিবছর আরও ১০ হাজার নারীদের আমরা প্রশিক্ষণ দিচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা স্বপ্ন দেখি, বিশ্বে নলেজ ইন্ডাস্ট্রি, হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিতে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ। সামনে যে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব আসবে তার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হবে বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা।’

উত্তরণবার্তা/এআর
 



পুরনো খবর