বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মূল উদ্দেশ্য ছিল মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধ্বংস করা : কৃষিমন্ত্রী     আগামীকাল ইতিহাসের ভয়াবহতম গ্রেনেড হামলার ১৫তম বার্ষির্কী     প্রকল্পের ভুল এ্যাসেসমেন্ট হলে দায়ী কর্মকর্তা শাস্তি পাবে : প্রধানমন্ত্রী     একনেকে তথ্য ভান্ডার সুরক্ষাসহ ১২ প্রকল্পের অনুমোদন     এডিস নির্মূলে ডিএনসিসির চিরুনি অভিযান শুরু     নতুন ওষুধে ভালো কাজ হচ্ছে: সাঈদ খোকন     তিস্তা চুক্তি হবে : জয়শঙ্কর     দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক শুরু    

ক্রিকেট পরে, আগে দেশ

  ফেব্রুয়ারী ২০, ২০১৯     ৮৮     ১০:৩০ অপরাহ্ণ     ক্রীড়া
--

উত্তরণবার্তা ডেস্ক : ১৬ জুন বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। আর সেই ম্যাচ নিয়ে এখন থেকেই ধোঁয়াশা। পুলওয়ামার সিআরপিএফ কনভয়ে আত্মঘাতী জঙ্গিহানার পর থেকে গোটা দেশ উত্তাল। পাকিস্তানের প্রতি ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছে দেশবাসী। সবার মুখে একটাই কথা, এবার যেভাবেই হোক পাকিস্তানকে একঘরে করে ফেলতে হবে। ইমরান খানের দেশের সঙ্গে আর কোনওরকম সম্পর্ক নয়। দেশের রাজনীতিক মহলের একাংশও একই ব্যাপারে সহমত পোষণ করছে। আর এবার ক্ষোভ, প্রতিবাদের ঢেউ ক্রিকেটেও। পাকিস্তানের সঙ্গে কোনওরকম ক্রিকেটীয় সম্পর্ক চাইছে না দেশের ক্রিকেটমহল। দুবাইতে অনুষ্ঠিত WION িএর গ্লোবাল সামিট অনুষ্ঠানে এসে ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার ভিভিএস লক্ষ্মণও সাফ জানিয়ে গেলেন একই কথা। বিশ্বকাপ হোক বা অন্য কোনও মঞ্চ, প্রয়োজনে পাকিস্তানকে সর্বোতভাবে বয়কটের ডাক দিয়ে গেলেন তিনিও।
পুলওয়ামায় নিহত জওয়ানদের পরিবারের পাশে রয়েছে গোটা দেশ। ভিভিএস লক্ষ্মণও এমনটাই জানিয়ে গেলেন। এমন আপতকালীন অবস্থায় তিনি দেশের সেনাবাহিনীর পাশে থাকার ডাক দিলেন। গ্লোবাল সামিট-এর মঞ্চে লক্ষ্মণকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, তিনি বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের পক্ষে কিনা! উত্তরে লক্ষ্মণ বলে দেন, ''এই মুহূর্তে আমরা সবাই দেশের সেনেবাহিনীর পাশে। এটা শোকের সময়। এমন সময় শহিদ সেনা জওয়ানদের পরিবারের পাশে থাকব আমরা সবাই। সন্ত্রাসবাদ ও সন্ত্রাসবাদীদের গোড়া থেকে নির্মূল করার শপথ নিতে হবে আমাদের সবাইকে। আর এই মুহূর্তে তাই ক্রিকেট আমার কাছে প্রধান বিষয় নয়। আগে দেশ।''
এখন থেকেই শোনা যাচ্ছে, ১৬ জুন বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচ বয়কট করতে পারে ভারত। জানা যাচ্ছে, বিসিসিআই-এর একাধিক কর্তাও এমনটাই চাইছেন। যদিও এখনও সরকারিভাবে কোনও ঘোষণা এখনও করা হয়নি। এমনকী, আইসিসির তরফেও জানানো হয়েছে, ১৬ জুন ম্যাচ হওয়ার ব্যাপারে তারা আশাবাদী। তবে পরিস্থিতি এখন বেশ জটিল। ফলে ১৬ জুন ভারত-পাক ম্যাচের ভবিষ্যত ঠিক কী হতে পারে, তা নিয়ে এখনই কোনও পাকাপাকি সিদ্ধান্ত জানা সম্ভব নয়। ইতিমধ্যে দেশের ক্রিকেটপ্রেমী জনগণের একাংশ বিশ্বকাপে পাকিস্তানিরে বিরুদ্ধে ম্যাচ বয়কটের ডাক দিয়েছেন। এদিন ভিভিএস লক্ষ্মণের বক্তব্যের পর সেই দাবি আরও জোরালো হল হয়তো!
উত্তরণবার্তা/অআ
 



কোরবানির মাংসের অন্যরকম হাট!

  আগস্ট ১৩, ২০১৯     ১৩৪৮

পুরনো খবর