দৃষ্টিনন্দন হবে শাহবাগ থেকে ঢাকা মেডিকেল: প্রধানমন্ত্রী     দুর্নীতি ও অনিয়ম রোধে শুদ্ধি অভিযান চলছে : ওবায়দুল কাদের     জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগ দিতে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রী     চট্রগ্রাম রেঞ্জ পুলিশ সম্মেলনে ০৬ ক্যাটাগরিতে নোয়াখালী জেলা পুলিশের শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন     প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্ক যাচ্ছেন আজ     নিয়মরক্ষার ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে কাল জিততে চায় জিম্বাবুয়ে     হাওয়া ভবন করে দুর্নীতি-কমিশন বাণিজ্যকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিল বিএনপি- তথ্যমন্ত্রী     জানি, কাজটা কঠিন, বাধা আসবেই, তবু করব: প্রধানমন্ত্রী    

তিন বন্ধুর এক্সপ্লোর বাংলাদেশ

  ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০১৯     ১১২     ১০:১৭ অপরাহ্ণ     শিক্ষা
--

উত্তরণবার্তা ডেস্ক : তিন বন্ধু সময় পেলেই ঘুরে বেড়ায়। পরিচিতদের কেউ কেউ তো মজা করে তাদের বলেই ফেলত, ওদের বোধ হয় বাড়িতে মন টেকে না। তাই ব্যাগ সবসময় তৈরিই থাকে বেরিয়ে পড়ার জন্য। তবে যে যা-ই বলুক না কেন, সেসবে তারা যে খুব একটা কর্ণপাত করত না, সেটা বেশ টের পাওয়া যেত। এই তিন বন্ধু হচ্ছেন মুশফিকুর রহমান শোভন, ইসসাম সালেম ও রৌদ্র আবাবিল। যারা সময় পেলেই ঘুরে বেড়ান দেশের এ প্রান্ত থেকে সে প্রান্তে। আজকের আয়োজন এ তিন ভ্রমণপ্রেমীকে ঘিরে—
ঘুরতে ভালোবাসেন যারা তারা নিশ্চয়ই দিনক্ষণ গুনে বের হন না। ঠিক তেমনটাই সত্য এ তিন তরুণ ভ্রমণপ্রেমীর ক্ষেত্রেও। তবে খানিকটা হিসাব-নিকাশ করে বলা যায়, তিন বন্ধুর একসঙ্গে ঘোরাঘুরি শুরু ২০১২ সাল থেকে। বলা চলে উদ্দেশ্যহীন ঘোরাঘুরি ছিল সেসব। কিন্তু এভাবে ঘুরতে ঘুরতেই তাদের মনে হলো কেমন হয় যদি দেশের বিভিন্ন স্থান ঘোরার সময় টুকটাক ভিডিও করে রাখা যায়। তাহলে পরবর্তী সময়ে সেসব ছবি, ভিডিও কিংবা ভ্রমণ অভিজ্ঞতা লেখা কনটেন্টগুলো ভ্রমণপ্রেমী মানুষদের কাজে লাগবে। সে ভাবনা অনুযায়ী পরিকল্পনা শুরু করেন তিন বন্ধু। প্রযুক্তি যেহেতু এত সুবিধা দিচ্ছে, সেক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকার কোনো মানেই নেই যেন। তাই প্রযুক্তিমাধ্যমকে প্লাটফর্ম বিবেচনা করে যাত্রা হয় এক্সপ্লোর বাংলাদেশের। ভ্রমণপ্রেমীদের জন্য গড়ে ওঠা এ ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ৬৩ হাজার।
এবার একটু খুলে বলা যাক এক্সপ্লোর বাংলাদেশ নিয়ে। এটি মূলত একটি ইউটিউব চ্যানেল। বেশকিছু ট্র্যাভেল ভ্লগ যেখানে স্থান পেয়েছে। যেখান থেকে নতুন কোনো স্থানে ভ্রমণের আগে ভ্রমণপ্রেমী যে কেউ পুরোপুরি ধারণা নিতে পারবেন স্থানটি সম্পর্কে। এক্সপ্লোর বাংলাদেশ সম্পর্কে ফাউন্ডার মেম্বার মুশফিকুর রহমান বলেন, আমরা যখন ভ্রমণ শুরু করি, তখন আমরা বেশকিছু সমস্যার মধ্য দিয়ে যাই। আর তা হলো তথ্যের অভাব। আমরা সবাই খুব বাজেট ট্যুর দিই। তাই প্রথমেই এসে যেত বাজেটের বিষয়টি। কোথায় কত টাকা লাগতে পারে, কীভাবে যেতে হবে, থাকার কী ব্যবস্থা, খাওয়ার ব্যবস্থা—এ তথ্যগুলোর খুবই অভাব বোধ করি। সেই চিন্তায় হঠাৎ করেই মাথায় আসে আমরা কেন এ তথ্যগুলোই দিতে পারি না। এতে করে সবাই উপকৃত হবে। যেই ভাবা সেই কাজ, মূলত এভাবেই শুরু হয় এক্সপ্লোর বাংলাদেশ।
এক্সপ্লোর বাংলাদেশ নিয়ে গল্পের ফাঁকে জানতে চেয়েছিলাম বেশ বড় অংকের সাবস্ক্রাইবারসহ চ্যানেল পরিচালনার পেছনের গল্প। তারা জানান, আমরা শুরুতে শুধু একটি ইউটিউব চ্যানেল করতে চেয়েছিলাম। সেই ভেবে আমরা বিভিন্ন স্থান নিয়ে ভ্লগ করা শুরু করি। কিন্তু আমাদের ভ্লগগুলো যে সবার এতটা পছন্দ হবে, তা আমরা বুঝিনি। পরবর্তী সময়ে টের পাই মানুষের একটি পছন্দের অংশ হয়ে গেছে যেন এ ইউটিউব চ্যানেলটি।
তিন বন্ধুর মধ্যে একটা মিল রয়েছে। আর তা হলো তিনজনের কাছেই ভ্রমণ নেশার মতো। তবে নিজের দেশটাকে আরো ভালোভাবে জানার আগ্রহ, বিভিন্ন রকম মানুষের সঙ্গে মেশা এবং প্রকৃতির মাঝে নিজেদের হারিয়ে ফেলার নেশার কারণেই নাকি তারা ঘুরে বেড়াতে ভালোবাসেন এ-প্রান্ত থেকে সে-প্রান্তে। তাদের মতে, ভ্রমণের চেয়ে বড় রোমাঞ্চ আর কিছুতেই নেই।
এ তিন তরুণের মুখেই শোনা হলো ভ্রমণে বের হয়ে রোমাঞ্চকর কিছু অভিজ্ঞতার কথা। চমত্কার সেসব অভিজ্ঞতা তাদের অভিজ্ঞতার ঝুলিকে আরো সমৃদ্ধ করছে। দলের এক সদস্য রৌদ্র আবাবিল তো বলেই ফেলেন—এসব অভিজ্ঞতা না থাকলে ভ্রমণ কখনো আনন্দের হয় না।
তবে শুধু ভ্রমণ করেই নিজেদের কাজে ইতি টানতে নারাজ মুশফিক, রৌদ্র আর সালেম। তারা স্বপ্ন দেখেন এ দেশের ট্যুরিজম অর্থনীতির অন্যতম উৎস হবে কোনো একদিন। তাদের কাজ থেকে সবাই ট্যুরিজম সম্পর্কিত সব সাহায্য পাবে—এমন ইচ্ছা নিয়েই এগিয়ে যেতে চান তারা।
উত্তরণবার্তা/অআ
 



পুরনো খবর