গণহত্যার কথা ফোরামে তুলবে জাতিসংঘ     এবার দেশেই হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পন্নের চেষ্টা : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী     ফখরুল ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা : হানিফ     ১১৭ উপজেলায় ভোট চলছে     রৌমারীতে ৩৫ হাজার মানুষের একটি ব্রীজের দীর্ঘদিনের দাবী     মক্কা-মদিনায় ক্রাইস্টচার্চের নিহতদের গায়েবানা জানাজা     মানবাধিকার সমুন্নত রাখতে সরকার কাজ করছে : গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী     নদী তীর দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান আরো জোরদার করা হবে    

সর্বপ্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক

  জানুয়ারী ১০, ২০১৯     ৬৪     ১২:৫০ অপরাহ্ণ     রাজনীতি
--

উত্তরণবার্তা ডেস্ক : আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক ১৯৪৬ সালের ১ অক্টোবর গাজীপুর সদর উপজেলার দাখিণ খান গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম মরহুম ডা. আনোয়ার আলী ও মাতার নাম মরহুমা রাবেয়া খাতুন।

বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি সক্রিয় রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এক মেয়াদে পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এবং দুই মেয়াদে সহ-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি গাজীপুর মহকুমা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক।

১৯৭৬ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৩৮ বছর ধরে তিনি কখনও গাজীপুর জেলা শাখা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আবার কখনও সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সংগঠক। ১৯৭১ সালের ১৯ মার্চ গাজীপুরে সর্বপ্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে ব্রিগেডিয়ার জাহান জেবের বিরুদ্ধে তিনি সম্মুখ যুদ্ধে নেতৃত্ব দেন। স্থানীয় সরকার পরিচালনায় তিনি বিশেষ দক্ষতার স্বাক্ষর রেখেছেন।

১৯৭৩ থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত তিনি ৩ বার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৯ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত ৪ বার পৌর চেয়ারম্যান ও মেয়র নির্বাচিত হন। বহুবার তিনি দেশের শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও ১৯৯৬ ও ২০০৩ সালে শ্রেষ্ঠ পৌর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

ঢাকা সদর উত্তর মহকুমার কার্যালয় (এসডিও অফিস) গাজীপুরে স্থানান্তরিত করা ও পরবর্তীতে গাজীপুর জেলা বাস্তবায়নেও ভূমিকা পালন করেন।

২০০৮ সালে পৌর মেয়রের পদ থেকে পদত্যাগ করে গাজীপুর-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং ভূমি মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে তিনি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুনরায় জয় লাভ করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

আ.ক.ম মোজাম্মেল হক শিক্ষা ও সমাজ সেবামূলক অসংখ্য কর্মকাণ্ডে জড়িত রয়েছেন। তিনি সরকারি সফরে এশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ইউরোপের বহু দেশ ভ্রমণ করেছেন।

উত্তরণবার্তা/এআর



সন্তানই আমার সবকিছু হবে

  মার্চ ১৯, ২০১৯     ১৭৬

পুরনো খবর