স্পিকারের সঙ্গে ইউএনডিপি’র প্রতিনিধিদলের সাক্ষাৎ     সংসদে আজ ওজন ও পরিমাপ মানদন্ড বিল, ২০১৮ পাস     ৩৫টি ড্রেজার কিনতে ৪,৪৮৯ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন     মিয়ানমারের ৫ জেনারেলের বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপ অস্ট্রেলিয়ার     ব্যারিস্টার মইনুলের গ্রেফতারে রাজনীতির সম্পর্ক নেই: নাসিম     নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত ২৬ অক্টোবর: সেতুমন্ত্রী     এশিয়ান হাইওয়ে নেটওয়ার্ক জোরদার করার উদ্যোগ     বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র :মার্কিন উপ-সহকারী মন্ত্রী    

বিয়েকে না বলে মাঠ মাতাচ্ছেন স্বপ্না

  অক্টোবর ১০, ২০১৮     ৩৯     ১১:৪৭ পূর্বাহ্ন     ক্রীড়া
--

উত্তরণবার্তা ক্রীড়া ডেস্ক : সিরাত জাহান স্বপ্না। খেলায় আসার আগে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু বিয়েকে না বলে আজ মাঠ মাতিয়ে বেড়াচ্ছেন। এই স্বপ্না ও তার দল দেশের জন্য নিয়ে আসছেন একের পর এক জয়।
 
অনূর্ধ্ব ১৮ দক্ষিণ এশিয়ান ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের সর্বোচ্চ গোলদাতা হলেন স্বপ্না। তিনি বিবিসি বাংলাকে বলেন, খেলায় আসার আগে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল, তার আগে দু বোনের বিয়ে দিয়ে দেয় পরিবার। তবে পরিবারকে বুঝিয়ে খেলার পথে আসেন স্বপ্না। স্কুল ফুটবলের গণ্ডি পেড়িয়ে এখন তিনি জাতীয় দলের খেলোয়াড়।
 
তার গায়ে এখন ১০ নম্বর জার্সি। যেকোনো দলেই সেরা খেলোয়াড়কে দেয়া হয় ১০ নম্বর জার্সি।  এটা যেই পড়ুক না কেনো একটা প্রত্যাশার চাপ পড়ে তার ওপর। আর সেই চাপ সামলে জয় নিয়ে আসছেন স্বপ্না।
 
২০০১ সালে রংপুরে জন্ম হয় সিরাত জাহান স্বপ্নার। তিনি বলেন, ‘আমার বাবা খেলাধুলা পছন্দ করতেন, মা একটু অপছন্দ করতেন, কিন্তু বাবার ইচ্ছাতে ফুটবল খেলতে আসি, এখন ভালো করার পর মা-বাবা দুজনই সাপোর্ট দেন।’
 
সেপ্টেম্বর মাসে ভুটানের চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে অনূর্ধ্ব ১৬ সাফে পাকিস্তানকে ১৪-০ গোলে উড়িয়ে দেয় বাংলাদেশ। এর এক মাসের ব্যবধানে অনূর্ধ্ব ১৮ সাফে বাংলাদেশের কাছে ১৭ গোল হজম করে পাকিস্তান।
 
আর এই জয়ে সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করেন স্ট্রাইকার স্বপ্না। ছয়টি গোল করেন। পুরো আসরে মোট সাতটি গোল করেন তিনি। খবর: বিবিসি বাংলা
 
উত্তরণবার্তা/এআর
 



নতুন আর্জেন্টিনা পুরনো ব্রাজিল

  সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৮     ৭৮৫৪

যমজ লাল্টু-পল্টুর দাম ২০ লাখ

  আগস্ট ১২, ২০১৮     ৪৫৮২

রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের সূচি

  জুন ০৬, ২০১৮     ৪২৯৬

পান খাওয়ার উপকারিতা

  অক্টোবর ১৫, ২০১৮     ২২৭২

পুরনো খবর