প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরছেন আজ     মণ্ডপে মণ্ডপে বিদায়ের সুর, আজ শুভ বিজয়া দশমী     চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহগামী ট্রেন লাইনচ্যুত     মহানবীর (সা.) রওজা জিয়ারত করলেন প্রধানমন্ত্রী     সৌদি বাদশাহর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ     শারদীয় দূর্গা পূজার আজ মহা নবমী     বাংলাদেশের উন্নয়ন কেউ থামাতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা     শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ    

আন্দোলনের মুরোদ নেই ষড়যন্ত্রে ব্যস্ত : ওবায়দুল কাদের

  সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮     ৩৫     ১১:৩৯ পূর্বাহ্ন     রাজনীতি
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যাদের আন্দোলন করার মুরোদ নেই, তারা ষড়যন্ত্র নিয়ে ব্যস্ত।

বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতাদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, তারা আন্দোলনে নেমে ঘুমায়। ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে আন্দোলন করে। আমাদের নেত্রী (শেখ হাসিনা) জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে রয়েছেন। কিন্তু তার অনুপস্থিতিতে আওয়ামী লীগ ঘুমিয়ে নেই। তার প্রমাণ চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারের পথে পথে জনসভায় লাখ লাখ নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের ঢল।

রোববার বিকালে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলায় এক সুধী সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে চট্টগ্রামের কর্ণফুলি ও আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশাল জনসভায় তিনি বক্তব্য দেন।

পথসভায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ, বিজ্ঞান সম্পাদক আবদুস সবুর, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপদফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, মোসলেম উদ্দিন আহমেদ, মাঈনুদ্দিন হাসান, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, সাইফুর রহমান সোহাগ ও এসএম জাকির হোসাইন প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বিএনপি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে কোটা আন্দোলনে ভর করেছিল। পরে ছাত্রদের কাঁধে ভর করেছিল। ভিডিও প্রচার করে গুজব ছড়িয়েছিল। গুজব রটিয়ে সন্ত্রাস সৃষ্টির চেষ্টা করেছিল। বিএনপির গুজব-সন্ত্রাস এখনও আছে।

এ ব্যাপারে দলীয় নেতাকর্মীদের সতর্ক করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঘরের ভেতরে ঘর করবেন না। দলীয় কোন্দল করবেন না। আগামী সংসদ নির্বাচনে যাকেই মনোনয়ন দেয়া হোক, তার পক্ষেই সবাইকে কাজ করতে হবে।

চট্টগ্রাম থেকে কক্সাবাজারে যাওয়ার সময় পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন। সকাল ৯টায় শাহ আমানত (রহ.) মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে দ্বিতীয় দিনের কর্মসূচি শুরু করেন ওবায়দুল কাদের ও তার সফরসঙ্গীরা। সেখানে হেফাজতের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফির সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

লোহাগড়ায় চুনতি গ্রামে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মিয়া মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীনের বাবার নামে ‘ইসহাক মিয়া সড়ক’ উদ্বোধন শেষে সেখানে সুধী সমাবেশে যোগ দেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

এরপর সড়কপথে কক্সবাজারের রামুতে পৌঁছে রাত সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত জনসভায় তিনি বক্তব্য দেন। চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত পথে পথে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। পথসভাগুলো রীতিমতো মহাসমাবেশে রূপ নেয়।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপ্রত্যাশীরাও দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনে শোডাউন করেন। রাস্তায় দু’ধারে হাত নেড়ে এবং ফুল ছিটিয়ে অভিবাদন জানান নেতাকর্মীরা। জবাবে ওবায়দুল কাদেরসহ কেন্দ্রীয় নেতারাও অভিবাদনের জবাব দেন।

সংবাদ প্রচারে গণমাধ্যমের একাংশ আওয়ামী লীগের প্রতি অবিচার করছে দাবি করে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, শনিবার ঢাকার মহানগর নাট্যমঞ্চে ৩০ দলের সমাবেশে দুই হাজার লোকও হয়নি।

কিন্তু আওয়ামী লীগের সড়কপথের পথসভাগুলো জনসভায় রূপান্তরিত হয়েছে। আমাদের পথসভায় লাখ লাখ মানুষের ঢল নেমেছে। অথচ গণমাধ্যমের একটি মহল তাদের ছবি বড় করে প্রচার করেছে, অথচ আমাদের সিঙ্গেল ছবি দিয়েছে। সমাবেশের লাখ লাখ মানুষের ছবি তারা দেয়নি।

সেতুমন্ত্রী কাদের আরও বলেন, ছবি না দিয়ে আমাদের জনপ্রিয়তা ঢাকা যাবে না, আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা ঢাকা যাবে না। শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা সারা বাংলায়। যুক্তফ্রন্টের ঐক্যে জনসমর্থন নেই দাবি করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন। কিন্তু ঐক্যের নামে ৩০ দল সমাবেশ করেছে মহানগর নাট্যমঞ্চে। তাদের আসলে জনসমর্থন নেই। জনসমর্থন থাকলে, সাহস থাকলে তারা সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করতেন।

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, সারা দেশে নৌকার পালে হাওয়া লেগেছে। এখন সবাই বলেন, ধানের শীষ পেটের বিষ, ধানের শীষ সাপের বিষ।

কক্সবাজারের চকরিয়ার পথসভায় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, কোন্দল করবেন না। ঘরের ভেতরে ঘর তৈরি করবেন না। দলীয় কোন্দল করবেন না। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যাকেই মনোনয়ন দেয়া হোক, তার পক্ষেই কাজ করতে হবে। আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকলে আমাদের বিজয় আসবেই।

মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, ঐক্য করে কোনো ফল হবে না। দেখলাম বি চৌধুরী হঠাৎ গরম গলায় বললেন, নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে। কার ভরসায় তিনি গলায় এত জোর পেলেন? এই বিএনপিই তাকে বঙ্গভবন থেকে রেললাইনে দৌড়ানি দিয়েছিল। সামনে তিনি কোন লাইনে দৌড়াবেন, তা সময়ই বলে দেবে। আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে লাভ হবে না। এই দলের শেকড় অনেক গভীরে। এ দলটির বিরুদ্ধে যারাই ষড়যন্ত্র করেছে, তারাই পরাজিত হয়েছে। জনবিচ্ছিন্ন ব্যক্তিদের নিয়ে ঐক্য করে সরকার হটানো যাবে না।

এনামুল হক শামীম বলেন, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। দলকে টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় এনে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। মনে রাখতে হবে, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এলে দেশে উন্নয়ন হয়, গণতন্ত্র টিকে থাকে। দেশকে এগিয়ে নিতে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।

হাছান মাহমুদ বলেন, ড. কামাল ও তার সঙ্গীরা কখনোই বিজয় দেখেননি। আগামী দিনেও তাদের এই ঐক্য বিজয়ের মুখ দেখবে না। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করুন। ঐক্যবদ্ধ থাকুন।

লোহাগাড়ার চুনতি ইছহাক মিয়া সড়ক উদ্বোধন : সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের লোহাগাড়ার চুনতি ইছহাক মিয়া সড়ক উদ্বোধন করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মিয়া মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীনের বাবা ‘ইসহাক মিয়া সড়ক’ উদ্বোধন উপলক্ষে চুনতি মেহেরুন্নেছা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত সুধী সমাবেশে ওবায়দুল কাদের বক্তব্য রাখেন। জয়নাল আবেদীনের প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা লোহাগাড়ায় একটি রত্ন দিয়েছেন, যিনি সড়ক, ব্রিজ, কালভার্ট দিয়ে লোহাগাড়াকে উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জয়নাল আবদীন জনুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মিয়া মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, নজরুল ইসলাম, আবু রেজা নদভী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। ১০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে সড়কটি চুনতি মুন্সেফ বাজার থেকে চুনতি এমচরহাট হয়ে লামা আলী কদমের সংযোগ রক্ষা করবে।

উত্তরণবার্তা/এআর


 



জিততেই এসেছে জিম্বাবুয়ে

  অক্টোবর ১৯, ২০১৮

নতুন আর্জেন্টিনা পুরনো ব্রাজিল

  সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৮     ৭৮৪৮

যমজ লাল্টু-পল্টুর দাম ২০ লাখ

  আগস্ট ১২, ২০১৮     ৪৫৭৫

রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের সূচি

  জুন ০৬, ২০১৮     ৪২৮৬

পুরনো খবর