বাজপেয়ী বাংলাদেশের মহান বন্ধু ছিলেন: শেখ হাসিনা     ট্রেনে ঈদযাত্রা শুরু     কোটা আন্দোলনের নেত্রী লুমা রিমান্ডে     বার্নিকাটের গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় ব্যবস্থা নেওয়া হবে     এলিফ্যান্ট রোডে বাসা থেকে ২ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার, গ্রেফতার ৬     সমকাল সম্পাদক গোলাম সারোয়ারের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন     দুই দিনের সেলিম আল দীন জন্মোৎসব     শিল্প এলাকায় শনিবার ব্যাংক খোলা    

মার্কিন সামরিক প্রশিক্ষণ কর্মসূচি থেকে পাকিস্তান বাদ

  আগস্ট ১১, ২০১৮     ১৪     ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন     বিদেশ
--

উত্তরণবার্তা আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মার্কিন সামরিক ইনস্টিটিউটগুলোর যেসব আসন থেকে পাকিস্তানের সেনা কর্মকর্তাদের বাদ দেয়া হয়েছে, সেগুলো অন্য কোনো দেশ থেকে পূরণের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। তবে পাকিস্তান বলছে, এক্ষেত্রে তারা চীন-রাশিয়ার দিকে আরো বেশি ঝুঁকবে।

আগামী শিক্ষা বছরে ট্রাম্প প্রশাসন পাক সেনা কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের জন্য বরাদ্দ দিতে অস্বীকার করেছে।

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আন্তর্জাতিক সামরিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচি(আইএমইটি) থেকে পাকিস্তানের কর্মকর্তাদের জন্য আগামী শিক্ষা বছরের জন্য বরাদ্দ বাতিল করে দেয়া হয়েছে। এখন এ আসনগুলো হয় ফাঁকা থাকবে কিংবা অন্য দেশ থেকে পূরণ করার চেষ্টা করা হবে।

পাকিস্তানের দৈনিক ডন জানায়, তারা প্রথম জানতে পেরেছে, ওয়াশিংটনের ইউএস ন্যাশনাল ডিফেন্স ইউনিভার্সিটিতে (এনডিইউ) পাক কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে না। অথচ গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে সেখানে তাদের কর্মকর্তাদের জন্য আসন বরাদ্দ ছিল।

বিদায়ী পাকিস্তানি কর্মকর্তারা বলেন, তাদের জন্য রাখা আসনগুলো অন্য দেশ থেকে পূরণ করতে বিশ্ববিদ্যালয়কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

পাকিস্তানের সেনা কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেয়া বেশ কয়েকটি মার্কিন প্রতিষ্ঠানের মধ্যে এনডিইউ একটি। চলতি বছরের শুরুতে ট্রাম্প প্রশাসন ঘোষণা করেছে, আফগানিস্তান ইস্যুতে মতপার্থক্যের জেরে তারা পাকিস্তানকে দেয়া সহায়তা স্থগিত করবে। কিন্তু তখন আভাস দেয়া হয়েছিল, পাকিস্তানের কর্মকর্তাদের জন্য সামরিক প্রশিক্ষণ চলবে।

পাকিস্তানের পরমাণু কর্মসূচি সত্ত্বেও নব্বইয়ের দশক থেকে দেশটির সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাপক নিরাপত্তা সম্পর্ক বিদ্যমান ছিল। কিন্তু এখন মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, সেটা ছিল তাদের বড় একটা ভুল।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কিন কর্মকর্তারা রয়টার্সকে বলেন, পাক কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি থেকে বাদ দেয়ায় তারা হতাশ। এতে দুই দেশের মধ্যেই আস্থা তৈরির একটি গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে মনে করেন তারা।

পাকিস্তানি কর্মকর্তারা হুশিয়ারি করে বলেছেন, নেতৃত্বের প্রশিক্ষণের জন্য তারা চীন ও রাশিয়ার দিকে আরো বেশি ঝুঁকে পড়বে।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, চলতি বছরে পাকিস্তানের ৬৬ কর্মকর্তাদের জন্য প্রশিক্ষণের জন্য বরাদ্দ রাখা আসনগুলো বন্ধ হয়ে যাবে। এ আসনগুলো হয় এখন ফাঁকা থাকবে কিংবা অন্য কোনো দেশ থেকে তা পূরণ করা হবে।

উত্তরণবার্তা/এআর



 



ট্রেনে ঈদযাত্রা শুরু

  আগস্ট ১৭, ২০১৮

যমজ লাল্টু-পল্টুর দাম ২০ লাখ

  আগস্ট ১২, ২০১৮     ৪৩৭২

রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের সূচি

  জুন ০৬, ২০১৮     ৪০৯২

পুরনো খবর