স্বর্ণের দাম ভরিতে বাড়ল আরও ৪৪৩০ টাকা     বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে লেজিসলেটিভ সচিবের শ্রদ্ধা     সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে সমাজে অস্থিরতা ছড়ালে ব্যবস্থা : তথ্যমন্ত্রী     জয়পুরহাটে টিকেট ছাড়া রেল ভ্রমণ, ৪৫ জনকে জরিমানা     শেখ কামালের সমাধিতে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের শ্রদ্ধা নিবেদন     বন্যার্তদের মাঝে ১০ হাজার ৪৮ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়েছে     শেখ হাসিনাকে জাপানের প্রধানমন্ত্রীর ফোন; ৩২৯ মিলিয়ন ডলার সহায়তার ঘোষণা     কোনো উসকানিতে দুই বাহিনীর সম্পর্ক নষ্ট হবে না : আইজিপি    

‘শতক নয় ম্যাচ শেষ না করতে পারার আক্ষেপে পুড়ছিলাম’

  জুলাই ১৪, ২০২০     ৫৯     ২২:০০     ক্রীড়া
--

উত্তরণবার্তা ক্রীড়া ডেস্ক : দীর্ঘ বিরতি শেষে ক্রিকেট ফেরার ম্যাচে রোমাঞ্চের সবটুকু ছড়িয়েছে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সাউদাম্পটনের অ্যাজেস বোলে ম্যাচের শেষদিনের তৃতীয় সেশনে এসে জয়ের দেখা পেয়েছে সফরকারি উইন্ডিজ। আর এই জয়ের পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান জার্মেইন ব্ল্যাকউডের। স্বাগতিকদের দেয়া ২০০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ব্ল্যাকউডের ৯৫ রানের কল্যাণে ৪ উইকেটের জয় পায় সফরকারীরা।

জিতলেও ম্যাচ শেষে আক্ষেপ ঝরেছে ব্ল্যাকউডের কণ্ঠে। জয় থেকে ১১ রান দূরে থাকতে ৯৫ করে আউট হয়ে ফেরেন এই ক্যারিবিয়ান। পাঁচ বছর পর ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় শতকের হাতছানি স্পর্শ করতে পারেননি তিনি। তবে শতক নয়, ব্ল্যাকউডের বড় আক্ষেপের জায়গা ম্যাচ শেষ করে আসতে না পারা। দুর্দান্ত খেলছিলেন, কিন্তু ১১ রান দূরে থাকতে স্টোকসের বলে মিড অফে ক্যাচ তুলে ফিরেছেন তিনি।

এমনভাবে আউট হয়ে হতাশায় পুড়েছেন জানিয়ে ব্ল্যাকউড বলেন, ‘খেলার এমন পর্যায়ে আউট হওয়ার পর আমার খুব হতাশ লাগছিল। আউট হয়ে আমি খুব আবেগী হয়ে পড়েছিলাম। আমি শতক নিয়ে একদমই ভাবছিলাম না। আমি কেবল দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়তে চেয়েছিলাম। আর দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়তে না পারায় আক্ষেপে পুড়ছিলাম আমি।’

বরাবরই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ভালো খেলা ব্ল্যাকউড যখন চতুর্থ ইনিংসে মাঠে নামেন ততক্ষণে টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান প্যাভিলিয়নে। তাও মাত্র ২৭ রানের মধ্যে। কিন্তু তাতেও সাহস হারাননি ব্ল্যাকউড। জানিয়েছেন, কোচ ফিল সিমন্স এবং অধিনায়ক জেসন হোল্ডার তাকে নিজের স্বাভাবিক খেলাটাই খেলে যেতে বলেছিলেন। ব্ল্যাকউডের ভাষ্যে, ‘আমি যখন দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করতে যাই, এক মুহূর্তের জন্যও আমি চাপ অনুভব করিনি। আমি যখন ব্যাটিংয়ে নামবো, তখন কোচ এবং অধিনায়ক ডেকে বললো, আমি যেন আমার স্বাভাবিক খেলাটাই খেলে যাই। কেবল শট নির্বাচনে একটু সাবধান থাকতে বলেছিল।’

বয়সভিত্তিক দল থেকে একসঙ্গে অধিনায়ক হোল্ডারের সঙ্গে খেলে আসছিলেন ব্ল্যাকউড। ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক জানতেন ব্ল্যাকউড ভালো খেলবেন। আর এমন বিশ্বাস তাঁর অনুপ্রেরণা আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন জানিয়ে ব্ল্যাকউড বলেন, ‘যখন আপনি জানবেন আপনার অধিনায়ক আপনার উপর সম্পূর্ণ আত্মবিশ্বাসী। সেটি তখন আপনাকে আলাদা অনুপ্রেরণা জোগাবে। অনূর্ধ্ব-১৫ এর বয়সভিত্তিক দল থেকে হোল্ডার আমার উপর ভরসা করে। সে জানে আমার পক্ষে কি করা সম্ভব।’

করোনা সঙ্কট কাটিয়ে শুরু হওয়া সিরিজটির দ্বিতীয় টেস্ট আগামী বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) থেকে ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে শুরু হবে। সাউদাম্পটনে জিতে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে সফরকারি ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

উত্তরণবার্তা/এআর



পুরনো খবর