সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে সমাজে অস্থিরতা ছড়ালে ব্যবস্থা : তথ্যমন্ত্রী     জয়পুরহাটে টিকেট ছাড়া রেল ভ্রমণ, ৪৫ জনকে জরিমানা     শেখ কামালের সমাধিতে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের শ্রদ্ধা নিবেদন     বন্যার্তদের মাঝে ১০ হাজার ৪৮ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়েছে     শেখ হাসিনাকে জাপানের প্রধানমন্ত্রীর ফোন; ৩২৯ মিলিয়ন ডলার সহায়তার ঘোষণা     কোনো উসকানিতে দুই বাহিনীর সম্পর্ক নষ্ট হবে না : আইজিপি     সিনহা নিহতের ঘটনায় দায় ব্যক্তির, কোনো বাহিনীর নয় : সেনাপ্রধান     সাবরিনা-আরিফুলসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট    

ধরলার পানির তোড়ে কুড়িগ্রামের নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত

  জুলাই ১৪, ২০২০     ৫২     ১২:২৯     আরও
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : অব্যাহত ভারী বর্ষণ আর ঢলের পানির তোড়ে কুড়িগ্রামের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি হয়েছে। ক্রমেই নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়ে বাড়ছে পানিবন্দি মানুষের সংখ্যা।

মঙ্গলবার সকাল ৯টায় ধরলার পানি সেতু পয়েন্টে বিপদসীমার ১০২ সেন্টিমিটার, ব্রহ্মপুত্রের পানি চিলমারী পয়েন্টে বিপদসীমার ৮৫ সেন্টিমিটার ও নুনখাওয়া পয়েন্টে ৮১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।
 
জেলার সবকটি নদ-নদীর পানি আশঙ্কাজনকহারে বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জেলা-উপজেলা শহরের সঙ্গে চরাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন লাখো মানুষ।
 
বানভাসি মানুষের মধ্যে খাদ্য, বিশুদ্ধ পানি, শুকনো খাবার ও জ্বালানি সংকট দেখা দিয়েছে। ঘর-বাড়িতে বন্যার পানি ওঠায় উঁচু রাস্তা, বাঁধ ও আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে হাজার হাজার মানুষ। তবে নৌকার অভাবে অনেকেই নিরাপদ স্থানে যেতে পারছেন না। তবুও জীবন বাঁচাতে দুর্ভোগের সঙ্গে নিরাপদ আশ্রয়ে ছুটছে নারী-পুরুষ-শিশু।

ধরলা নদীর পানির প্রবল চাপে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার সারডোবে একটি বিকল্প বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে পানি ঢুকে নতুন করে আরও ঘর-বাড়ি প্লাবিত হয়েছে। প্রবল স্রোতে বেশকিছু ঘর-বাড়ি ও গাছ-পালা বিধ্বস্ত হয়েছে। হাস-মুরগি, আসবাবপত্র, ধান-চালসহ অনেক মালামাল ভেসে গেছে।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আরিফুল ইসলাম জানান, সারডোবে বিকল্প বাঁধটি রক্ষার জন্য বালুর বস্তা ফেলা হচ্ছিলো। কিন্তু তীব্র স্রোতের মুখে পানির প্রবল চাপে শেষ পর্যন্ত বাঁধটি রক্ষা হয়নি।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. রেজাউল করিম জানান, পানিবন্দি মানুষকে উদ্ধারে প্রয়োজনীয় নৌকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। জেলায় ৪৩৮টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ৪শ মেট্টিক টন চাল, ১১ লাখ টাকা ও তিন হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার উপজেলা পর্যায়ে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

উত্তরণবার্তা/এআর



৫ আগস্ট : হাসতে নেই মানা

  আগস্ট ০৫, ২০২০     ১১৬

প্রাইজবন্ডের ১০০তম ড্র

  আগস্ট ০৫, ২০২০     ৭৯

আজও রয়েছে ঝড়বৃষ্টির আভাস

  আগস্ট ০৫, ২০২০     ৩২

পুরনো খবর