সংসদে বঙ্গবন্ধুর মুখে কবিতার লাইন     রেলপথে ট্রানজিট পাচ্ছে নেপাল     শান্তির পথে আফগানিস্তান, ৪০০ তালেবানকে মুক্তির সিদ্ধান্ত     শিশুদের আত্মপ্রত্যয়ী ও মননশীল করে গড়ে তুলতে হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী     ভাদ্র মাসের বন্যা নিয়ে সতর্ক করলেন প্রধানমন্ত্রী     ১০ লাখ গাছের চারা রোপন করবে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়     ডিসেম্বরের মধ্যে তারের জঞ্জাল থেকে মুক্ত হবে ডিএসসিসি     করোনায় আরও ৩৯ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯০৭    

মাত্র ১০ টাকায় চাল ডাল আটা ডিম সবজি!

  জুলাই ১১, ২০২০     ৪৮     ১০:৪০     আরও
--

উত্তরণবার্তা  প্রতিবেদক : ঢাকার কেরাণীগঞ্জের ঘাটারচর এলাকায় করোনা পরিস্থিতির কারণে বিপাকে পড়া পরিবারের জন্য আয়োজন করা হয়েছে ১০ টাকার বাজার। এই টাকার মধ্যেই মিলছে চাল, ডাল, আটা, ডিম, সবজি ও নুডুলস।

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন 'প্রচেষ্টা শান্তি সংঘ’র একক প্রচেষ্টায় শুক্রবার ঘাটারচরের ওলামানগর ন্যাশনাল উচ্চ বিদ্যালয় স্কুল মাঠে দ্বিতীয় বারের মত ১০০ অসহায় পরিবারের জন্য এই বাজার আয়োজন করা হয়েছিল। এই উদ্যোগের সহায়তা করেছে তারানগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন ফারুক।

মাত্র ১০ টাকার বিনিময়ে ১ কেজি আটা, ১ কেজি চাল, আধা কেজি ডাল, ১ প্যাকেট নুডলস, দুটি ডিম দেয়া হয়। শাক-সবজির মধ্যে ছিল, ১ পিস মিষ্টি কুমড়া, ১ পিছ জালি কুমড়া, আধা কেজি ঢেঁড়স, ১ আটি পুই শাক, ১ আটি লাল শাক ও দুটি লেবু।

করোনাভাইরাসের প্রকোপে কর্মহীন হয়ে পড়া এই পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়াতে নামমাত্র মূল্যে খাদ্যসামগ্রী সরবরাহে এগিয়ে আসে প্রচেষ্টা শান্তি সংঘ। দুস্থ ও সুবিধাবঞ্চিত ছাড়াও বেশ কয়েকটি নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারও সহায়তা নিয়েছে। মানুষ যাতে ত্রাণ সামগ্রী না ভাবে, তাই মাত্র ১০টাকার বিনিময়ে এই আয়োজন করা হয়। ১০ টাকার এই বাজার স্থানীয়দের মাঝে বেশ সাড়া ফেলেছে।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রবিউল আলম হাসিব বলেন, লকডাউন শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কেরাণীগঞ্জের বিভিন্ন প্রান্তে আমরা মানুষের প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করেছি। এলাকাবাসীকে বারবার বোঝানোর চেষ্টা করেছি করোনা নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হতে। আজকের আয়োজনটি সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আয়োজন করেছি। সবার সহযোগিতা পেলে এমন আরও কিছু আয়োজন করতে চাই।

প্রচেষ্টা শান্তি সংঘের সহ-সভাপতি কাউসারুজ্জামান রনি বলেন, চার মাস ধরে সংগঠনের পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচি করা হয়েছে। খাদ্য সামগ্রী ছাড়াও বিনামূল্যে মাস্ক, সাবানসহ সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছি। শুরুতে অনেকেই এগিয়ে এসেছিলেন। যাদের মাধ্যমে আমরা একটি ফান্ড গঠন করেছিলাম। আজকের ইভেন্টে ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। আপাতত আমাদের ফান্ড কমে এসেছে। মানুষের কল্যাণে আমাদের সঙ্গে যদি কেউ সম্পৃক্ত হতে চান তাহলে তাদের স্বাগত জানাই। ইচ্ছা আছে প্রতি সপ্তাহে একদিন করে এমন নাম মাত্র মূল্যে খাদ্য সামগ্রীর বাজার আয়োজন করার।

উত্তরণবার্তা/এআর



পুরনো খবর