শবে বরাতে বাড়িতে নামাজ আদায় ও ইবাদত করার অনুরোধ     রবিবারের মধ্যে ১০ টাকা চালের বেনামি কার্ড জমা দিতে হবে: খাদ্যমন্ত্রী     করোনায় বিশ্বব্যাপী মৃত্যু ছাড়াল ৬০ হাজার     প্রয়োজনে লঞ্চগুলোকে ভাসমান হাসপাতাল করা হবে: নৌ প্রতিমন্ত্রী     করোনা: জুন পর্যন্ত ক্রেডিট কার্ডে জরিমানা নয়     করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ৮৫০ কোটি টাকা দেবে বিশ্বব্যাংক     বাংলাদেশে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী     করোনা : টেস্টিং কিটের কাঁচামাল আসছে ৬ এপ্রিল    

১০ দিনের ছুটি শুরু, চলছে না গণপরিবহন

  মার্চ ২৬, ২০২০     ৪৩     ১২:১৪     জাতীয় সংবাদ
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে আজ থেকে শুরু হয়েছে ১০ দিনের সাধারণ ছুটি। যার জন্য রাজধানীর রাস্তায় দেখা যাচ্ছে না নগরবাসীদের। করোনার কারণে জনগণকে বাসায় থাকা নিশ্চিত করতে সরকার মোতায়েন করেছে সেনাবাহিনী। তাই সকাল থেকেই রাজধানীর রাস্তা ঘাটে দেখা যাচ্ছে না মানুষ।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ঘোষণা অনুযায়ী করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় আজ থেকে সারাদেশে গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে যা অব্যাহত থাকবে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত।

গণপরিবহন না চলায় আজ বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সকাল থেকে রাজধানীর সড়কগুলোতে দু-একটি প্রাইভেট গাড়ি ও মোটরসাইকেল ছাড়া কোনো গণপরিবহন চোখে পড়েনি। এমনকি মানুষ নেই বলে রিকশাও চলছে না রাস্তায়।

এদিকে করোনাভাইরাস সামলাতে বুধবার সকাল থেকে মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। সঙ্গে আছে পুলিশ ও র‍্যাব। তারা বিভিন্ন অলিতে-গলিতে টহল দিচ্ছে। কোন ধরনের গণজমায়েত দেখলেই তা ভেঙে দিচ্ছে। এমনকি ২ জন মানুষ এক সঙ্গে হাঁটা চলা করলেও তাদের আলাদা করে দিচ্ছে এবং বাসায় পাঠিয়ে দিচ্ছে। আর কেন বাসা থেকে বের হয়েছে সেই কারণও জিজ্ঞাসা করছে।

বাসার বাইরে বাজার করতে বের হয়েছে মোহাম্মদ সাজিদ হোসেন। তার সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন, বাসায় বাজার নেই তাই শাকসবজি সঙ্গে আরো কিছু কেনার জন্য বের হয়েছি। কিন্তু এসে দেখি সব দোকান পাট বন্ধ। অনেকদূর হেঁটে গিয়ে দেখি দুই একটা দোকান খোলা রয়েছে। সেখান থেকেই কিছু কেনাকাটা করলাম।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস ঠেকাতে সরকার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। মাঠে সেনাবাহিনী নামানোয় আমাদের মতো সাধারণ মানুষ একটু আসার আলো দেখতে পাচ্ছি। আমাদের আসলে নিজ নিজ উদ্যোগেই বাসায় থাকা উচিৎ। কিন্তু মাঝে মধ্যে বের হতে হচ্ছে খাবারের জন্য। কি করবো বলেন, কিছু খেয়েতো বেঁচে থাকতে হবে।

এদিকে রাজধানীর গাবতলী, মহাখালী, সায়েদাবাদ, কল্যাণপুর বাস টার্মিনালে খোঁজ নিয়ে যানা গেছে, সকাল থেকেই কোন ধরনের দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যায়নি। বাস কাউন্টারগুলো একদম ফাঁকা। সব বন্ধ করে কাউন্টার ম্যানেজার ও কর্মচারীরা নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করছেন। পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যাবে না রাজধানী থেকে।

উত্তরণবার্তা/এআর



লকডাউন কতদিন প্রয়োজন

  এপ্রিল ০৪, ২০২০     ৩৩

পুরনো খবর