প্রবাসীরাও পশু অর্ডার করতে পারবেন অনলাইন হাটে     সিঙ্গাপুরের নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের জয়     বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস আজ     ফুঁসে উঠেছে তিস্তা     ঢাকাবাসীর জন্য ‘ডিজিটাল হাট’ চালু হচ্ছে শনিবার     সাহারা খাতুনের লাশ আসছে রাতে, শনিবার বনানীতে দাফন     নেপালে ভয়াবহ ভূমিধস, নিহত ১০     দেশবাসীকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর    

হয়তো এটাই আমার শেষ মঞ্চে ওঠা: জয় বাংলা কনসার্টে সুমন

  মার্চ ০৮, ২০২০     ১২৫     ১৫:২৯     বিনোদন
--

উত্তরণবার্তা ডেস্ক : মেরুদণ্ডে ক্ষত। বসানো আছে ধাতব দুটি প্লেট। যার একটি ভেঙে গেছে। জরুরি অস্ত্রোপচারের অপেক্ষা। এই অবস্থায় অর্থহীন ব্যান্ডের সুমনের আশ্রয় বিছানা। অস্ত্রোপচারের জন্য যাওয়ার কথা জার্মানি। এটাই ছিল গত সপ্তাহ পর্যন্ত বেজবাবা সুমনের শেষ আপডেট।
কিন্তু সবাইকে চমকে দিয়ে শনিবার রাতে ক্র্যাচে ভর করে আর্মি স্টেডিয়ামের জয় বাংলা কনসার্টের মঞ্চে উঠে পড়লেন সুমন! মঞ্চে থাকা ফুয়াদ অ্যান্ড ফ্রেন্ডস সদস্যদের ধন্যবাদ দিয়ে স্থির গলায় জানালেন, ‘হয়তো এটাই আমার শেষ কনসার্ট। শেষ মঞ্চে ওঠা।’
কারণ দ্রুততম সময়ে বড় ধরনের সার্জারির মধ্যে দিয়ে যেতে হবে সুমনকে। যার ফল নেতিবাচক হওয়ার সম্ভাবনা ৭০ ভাগ। আর সেটিই যদি ঘটে, তাহলে আজীবনের জন্য হুইলচেয়ার বেছে নিতে হবে ‘বেজবাবা’খ্যাত এই গায়ককে।
মঞ্চে ক্র্যাচে ভর করে কথা বলা সুমনকে দেখে মুহূর্তে শোক ঘিরে আসে ঢাকার আর্মি স্টেডিয়ামে। এরপর ফুয়াদ অ্যান্ড ফ্রেন্ডসের হয়ে সুমন গেয়ে শোনান ‘আমার প্রতিচ্ছবি’ এবং ‘গাইব না আর কোন গান’।
এর পুরোটা সময় ক্র্যাচে ভর দিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন এই গায়ক।
শনিবার রাতে হঠাৎ মঞ্চে আসা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘আমার খুব গুরুত্বপূর্ণ সার্জারি আছে ১৮ মার্চ। এর আগে অর্থহীনের স্টেজে ওঠার সম্ভাবনা ছিল না। ফুয়াদ একদিন ফোন দিয়ে বলল, দু’একটি গানের জন্য আমি মঞ্চে উঠতে পারব কিনা? আমি বললাম, অবশ্যই। কারণ হতে পারে এটাই আমার শেষ মঞ্চে ওঠা। সার্জারির পর যদি আর না উঠে দাঁড়াতে পারি। সেই শঙ্কা থেকেই আমি নিজের শরীরের বিরুদ্ধেও আজ ছুটে এলাম।’’
ক্যানসার ও দুর্ঘটনার জন্য সুমনের শরীরের এখন পর্যন্ত ১৫টির বেশি অস্ত্রোপচার হয়েছে। তার মেরুদণ্ডের হাড় ভাঙা। এ কারণে দুটি ডিস্ক বসানো হয়েছিল। গত বছরের সেপ্টেম্বরে মেরুদণ্ডের অস্ত্রোপচার হয়। একই কারণে আবারও তাকে জার্মানি যেতে হবে।
এদিকে স্বাধীনতার ডাক দিয়ে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর দেওয়া ঐতিহাসিক ভাষণকে কেন্দ্র করে সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) প্রতিষ্ঠান ইয়াং বাংলার তত্ত্বাবধানে গতকাল ষষ্ঠবারের মতো অনুষ্ঠিত হয় জয় বাংলা কনসার্ট।
শনিবার দুপুরে বৃষ্টির বাধা পেরিয়ে ২টার দিকে এই কনসার্ট শুরু হয় জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে। ছিল বঙ্গবন্ধুর ভাষণ ও প্রথমবারের মতো বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে হলোগ্রাফিক প্রদর্শনী।
বেলা তিনটার পর কনসার্টের মূল পর্ব শুরু হয় ব্যান্ড এফ মাইনরের পরিবেশনা দিয়ে। এরপর একে একে মঞ্চে ওঠেন মিনার রহমান, এভোয়েড রাফা, শূন্য ও ভাইকিংস, ক্রিপটিক ফেইট, নেমেসিস, ফুয়াদ অ্যান্ড ফ্রেন্ডস ও চিরকুট।
উত্তরণবার্তা/অআ



পুরনো খবর