বন্যার্তদের মাঝে ১১ হাজার ৬ টন চাল বিতরণ করেছে সরকার     শনিবার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসার ৯০তম জন্মবার্ষিকী     সিনহার বিষয়ে সরকার অত্যন্ত আন্তরিক : ওবায়দুল কাদের     নিখোঁজ কয়েদির সন্ধানে অভিযান চলছে : কারা মহাপরিদর্শক     ১৬ অঞ্চলে বয়ে যেতে পারে ঝড়ো হাওয়া     শিমুলিয়া ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীচাপ বাড়ছে     শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী রুটে ফেরি চলাচল শুরু     রাজধানীসহ ১৯ অঞ্চলে বৃষ্টির পূর্বাভাস    

‘১৪ সেলাই নিয়ে জীবনেও খেলার চিন্তা করতাম না’

  জানুয়ারি ১৪, ২০২০     ২৫৩     ০০:১৭     ক্রীড়া
--

উত্তরণবার্তা ক্রীড়া ডেস্ক : মাশরাফি বিন মুর্তজা চমকে দিয়েছেন আরেকবার।

চোটের বিরুদ্ধে লড়াই করে সব সময়ই জিতেছেন মাশরাফি। চোট পেয়েছেন। আবার মাঠে ফিরেছেন। তার চোট জর্জরিত ক্যারিয়ারের চক্রটা এমনই। তবে এবার বিস্ময় ছড়িয়ে মাশরাফি নিজেকে নিয়ে গেছেন অন্য উচ্চতায়।

বিপিএলে গত শনিবার রাইলি রুশোর জোরালো শট আটকাতে দিয়ে তার বৃদ্ধাঙ্গুল ও তর্জনির মাঝে কেটে যায় অনেকটা। হয়েছিল রক্তক্ষরণ। হাতে নিতে হয়েছে ১৪ সেলাই। ক্ষতস্থান এখনো দগদগে। সেখানে ব্যান্ডেজ নিয়ে সোমবার মাঠে নামেন মাশরাফি।

কখন মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নিলেন? ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বললেন, ‘যখন ফিট হয়েছি তখন খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ এর আগে টসের সময় মাশরাফি বলেছিলেন, ‘আপনি যখন খেলছেন তখন কোনো কিছু নিয়ে অস্বস্তিবোধ করতে পারেন না। আমি ঠিক আছি।’

হাতে চোট নিয়েই মাশরাফি বোলিং, ব্যাটিং, ফিল্ডিং; সব করেছেন। ব্যাটিংয়ে ২ বল খেলে রান পাননি। বোলিংয়ে ৪ ওভারে ৩৩ রান দিয়ে ছিলেন উইকেটশূন্য। ফিল্ডিংয়ে নিয়েছেন একটি ক্যাচ। গেইলের ক্যাচটি নিয়েছেন এক হাতে। কীভাবে সম্ভব হলো?

‘ক্যাচ চলে এসেছে। অপশন ছিল না দুই হাত দেয়ার। দ্রুত চলে আসলে কী হতো জানি না। খেলার সময় দুই হাত চলেও যায়। আস্তে ছিল বলে ধরতে পারছি’- জবাব দিয়েছেন মাশরাফি।

মাশরাফির খেলার প্রতি এতটা আগ্রহ, নিবেদন ও সাহসিকতায় মুগ্ধ বিপক্ষ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ম্যাচ শেষে মাহমুদউল্লাহর কন্ঠে ঝরল মাশরাফির প্রশংসা।

মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘তাকে টুপি খোলা সালাম। ১৪টা সেলাই নিয়ে উনি খেলেছেন। অসাধারণ। আমি উনার জায়গায় থাকলে হয়তো জীবনেও খেলার চিন্তা করতাম না। উনি খেলেছেন। ভালো বোলিং করেছেন। দারুণ একটি ক্যাচও নিয়েছেন। বলটা স্পিন করছিল। গেইলের মতো ব্যাটসম্যানের উইকেট।’

মাশরাফি খেললেও পারেননি দলকে জেতাতে। তার দল বিদায় নিয়েছে বিপিএল থেকে। পরাজয়ের কারণ জানাতে গিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘টুর্নামেন্টের মূল জায়গায় এসে পরপর দুই ম্যাচ হেরে আমাদের ক্ষতি হয়েছে। শেষ দুই ম্যাচের আগে আমরা ভালো অবস্থায় ছিলাম। কিছু খেলোয়াড় যাওয়া-আসার ভেতরে থাকায় দলে ভারসাম্য রাখা কঠিন হয়ে গিয়েছিল।’

‘পুরো টুর্নামেন্টে আমাদের মিডল অর্ডার ওভাবে খেলতে পারেনি। তামিম আউট হয়ে গেলে সমস্যা দেখা দিয়েছে। যেভাবে টুর্নামেন্ট খেলেছি আমাদের সুযোগ আরও বেশি ছিল। আগের ম্যাচ জিতলে আমাদের ফাইনাল যাওয়ার সুযোগ আরেকটা থাকত’- যোগ করেন মাশরাফি।

উত্তরণবার্তা/এআর



৭ আগস্ট: হাসতে নেই মানা

  আগস্ট ০৭, ২০২০     ১০২

ত্রিভুজ প্রেমের গল্পে তারিন

  আগস্ট ০৭, ২০২০     ৪৮

পুরনো খবর