জমে উঠেছে রাজধানীর পশুর হাট গাবতলি     এবার গার্মেন্টস খাত অস্থিতিশীল করার খেলায় মেতেছে অশুভ চক্র : সেতুমন্ত্রী     আজ পবিত্র হজ     ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজধানীতে ৪০৯টি ঈদ জামাত হবে     ঈদে বাড়ি ফিরতে ট্রেনেই আস্থা     সদরঘাটে জনতার ঢল     প্রদর্শনী ম্যাচে মেসিবিহীন আর্জেন্টিনা     ১০ বছর নিষিদ্ধ নাসির জামসেদ    

ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভে ইসরাইলি স্নাইপারদের গুলিতে নিহত ৪

  জুন ০৯, ২০১৮     ৬৩     ১০:৩২ পূর্বাহ্ন     বিদেশ
--

উত্তরণবার্তা ডেস্ক : গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনিদের বসতভিটায় ফেরার অধিকার দাবিতে বিক্ষোভে ইসরাইলি স্নাইপারদের গুলিতে ৪ জন নিহত হয়েছেন।

গাজা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ কিদরা বলেন, এতে ৬১৮ জনের মতো আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে সাতজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।-খবর স্পুটনিকের।

নিহতদের মধ্যে হাইথাম আল জামাল নামে ১৫ বছর বয়সের একটি শিশুও রয়েছে। খান ইউনিসের পূর্ব সীমান্তে সে গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

ইসরাইলি সেনাবাহিনী বলেছে, সীমান্তের পাঁচটি স্থানে প্রায় ১০ হাজার বিক্ষোভকারী জড়ো হয়েছিলেন।

গত ৩০ মার্চ শুরু হওয়া ফিলিস্তিনিদের গ্রেট মার্চ অফ রিটার্ন আন্দোলন শুরু হওয়ার পর এ পর্যন্ত ১২৮ জন নিহত হয়েছেন। এতে এখন পর্যন্ত কোনো ইসরাইলি হতাহত হয়নি।

১৯৪৮ সালে ইহুদি সশস্ত্র গোষ্ঠীর হামলায় থেকে বাঁচতে প্রায় সাড়ে সাত লাখ ফিলিস্তিনি নিজেদের বসতবাড়ি থেকে বিতাড়িত হন।

এসব ফিলিস্তিনি পার্শ্ববর্তী আরব দেশ, অধিকৃত পশ্চিমতীর ও গাজায় শরণার্থী হিসেবে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। তাদের নিজেদের ভূমিতে ফিরে যাওয়ার অধিকার দাবিতে গত ৩০ মার্চ থেকে 'গ্রেট মার্চ ফর রিটার্ন' আন্দোলন শুরু হয়েছে।

এ ছাড়া গত একযুগ ধরে গাজা উপত্যকাটি অবরুদ্ধ করে রেখেছে ইহুদিবাদী ইসরাইল। সেখানে সীমান্ত দিয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীও প্রবেশ করতে দেয়া হয়।

এতে উপত্যকাটি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত কারাগারে রূপান্তরিত হয়েছে। সেখানকার অর্থনীতিও প্রায় ধ্বংস হয়ে গেছে।

গত ১৪ মে তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের প্রতিবাদে ফিলিস্তিনিরা বিক্ষোভে ফেটে পড়লে ইসরাইলি স্নাইপারদের গুলিতে ৬২ জন নিহত হন।

মানবাধিকার সংস্থাগুলো ইসরাইলের বিরুদ্ধে নিরস্ত্র বিক্ষোভকারীদের ওপর অতিরিক্ত বলপ্রয়োগের অভিযোগ তোলেন।
 
উত্তরণবার্তা/এআর



যমজ লাল্টু-পল্টুর দাম ২০ লাখ

  আগস্ট ১২, ২০১৮     ৪৪৭৮

রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের সূচি

  জুন ০৬, ২০১৮     ৪১১২

পুরনো খবর