মানবতাবিরোধী অপরাধ, গাইবান্ধার রঞ্জু মিয়াসহ পাঁচজনের ফাঁসি     এ মাসেই চালু হচ্ছে চট্টগ্রাম-মদিনা বিমানের সরাসরি ফ্লাইট     কিশোরগঞ্জের পুরো হাওর এখন পর্যটন এলাকা     মেক্সিকোতে বন্দুকধারীদের অতর্কিত হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত     সরকারি সফরে কাতার যাচ্ছেন সেনাবাহিনী প্রধান     লাইসেন্সকৃত অস্ত্র বেহাত করলে লাইসেন্স বাতিল     আবরার হত্যার বিচার দ্রুত শেষ করতে আইনমন্ত্রীকে নির্দেশ     অনুপ্রবেশকারীদের ঝেঁটিয়ে বিদায় করতে বললেন নানক    

সাহিত্যে নোবেল পেলেন দুজন

  অক্টোবর ১০, ২০১৯     ২৩     ২২:২৩     বিদেশ
--

উত্তরণবার্তা আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সাহিত্যে দুই বছরের নোবেল পুরস্কার একসঙ্গে ঘোষণা করলো নোবেল কমিটি। ২০১৮ সালের জন্য নোবেল পেয়েছেন  পোলিশ সাহিত্যিক ওলগা টুকারচুক। আর ২০১৯ সালের জন্য নোবেল পেলেন পিটার হান্দকে।

নোবেল কমিটির দেয়া বিবৃতিতে পিটার হান্দকে সম্পর্কে বলা হয়েছে, ‘মানুষের অভিজ্ঞতাকে সুনির্দিষ্টকরণ এবং তার চতুর্সীমাকে ভাষাশৈলীর মাধ্যমে প্রকাশ করার মতো প্রভাবশালী কাজের জন্য’ তাকে এবারের নোবেল দেয়া হয়েছে। হান্দকের জন্ম অষ্ট্রিয়াতে। ১৯৭১ সালে হ্যান্ডকে’র মা আত্মহত্যা করেন। মায়ের জীবনকে উপজীব্য করে তিনি লিখেছিলেন ‘অ্যা সরো বিয়ন্ড ড্রিমস’।

পোলিশ সাহিত্যিক ওলগা টুকারচুক সম্পর্কে বলা হয়েছে, তার সাহিত্য হচ্ছে, ‘কল্পনার আখ্যান যেটি সর্বব্যাপী আবেগ নিয়ে জীবনের অবয়বের সীমা অতিক্রমকে প্রতিনিধিত্ব করে।’

ওলগার জন্ম ১৯৬২ সালে পোল্যান্ডের সুলেশ’তে। তার বাবা-মা দুজনই ছিলেন শিক্ষক। তার বই গ্রন্থাগারিক হিসেবেও কাজ করেছেন। সেই সুবাদে লাইব্রেরিতে ব্যাপক পড়াশোনার সুযোগটি কাজে লাগিয়ে সাহিত্যের ক্ষুধা নিবারণ করেছেন তিনি। ইউনিভার্সিটি অব ওয়ার্‌শ থেকে মনোবিজ্ঞানে স্নাতোকোত্তর শেষ করে তিনি সাহিত্যে লেখালেখি শুরু করেন। ১৯৯৩ সালে তার লেখা দ্য জার্নি অব দ্য বুক পিপল উপন্যাসটি আলোচনায় আসে।

প্রসঙ্গত, গত বছর সুইডিশ অ্যাকাডেমির সদস্য ক্যাটারিনা ফ্রস্টেনসনের স্বামী জাঁ-ক্লোদ আর্নোর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে। ফ্রস্টেনসন সুইডেনের সাংস্কৃতিক মহলে একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি৷ তিনি ও তার ফরাসি স্বামী আর্নো যে সাংস্কৃতিক চক্রটি চালিয়ে থাকেন, তা অ্যাকাডেমির কাছ থেকে অর্থ সাহায্য পায়৷ আর্নোর বিরুদ্ধে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত ব্যক্তিদের নাম ফাঁস করারও অভিযোগ ওঠে। এর জের ধরে ১৮ সদস্য বিশিষ্ট সুইডিশ অ্যাকাডেমির একাধিক সদস্য পদত্যাগ করেন। পরবর্তীতে নোবেল কমিটি ‘জনগণের আস্থাহীন’ হয়ে পড়েছে উল্লেখ করে নোবেল কমিটি গত বছর নোবেল প্রদান স্থগিত রাখে।

উত্তরণবার্তা/এআর



পুরনো খবর