মানবতাবিরোধী অপরাধ, গাইবান্ধার রঞ্জু মিয়াসহ পাঁচজনের ফাঁসি     এ মাসেই চালু হচ্ছে চট্টগ্রাম-মদিনা বিমানের সরাসরি ফ্লাইট     কিশোরগঞ্জের পুরো হাওর এখন পর্যটন এলাকা     মেক্সিকোতে বন্দুকধারীদের অতর্কিত হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত     সরকারি সফরে কাতার যাচ্ছেন সেনাবাহিনী প্রধান     লাইসেন্সকৃত অস্ত্র বেহাত করলে লাইসেন্স বাতিল     আবরার হত্যার বিচার দ্রুত শেষ করতে আইনমন্ত্রীকে নির্দেশ     অনুপ্রবেশকারীদের ঝেঁটিয়ে বিদায় করতে বললেন নানক    

যখন রাস্তায় মার খেতাম তখন এই মাফিয়া-ডনরা কোথায় ছিল : নাসিম

  অক্টোবর ০৪, ২০১৯     ২১     ২২:০৯     রাজনীতি
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : মাফিয়া ডনদের গড়ে তোলা দুষ্টচক্র ভাঙতেই হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

তিনি বলেছেন, এরা কারা আজকে যাদের নাম শুনি, পত্র-পত্রিকায় চেহারা দেখি, বিরাট ধনী? কোথায় থেকে এসে একেকজন বিরাট ডন হয়ে গেছে। এইসব ডনরা এখন চষে বেড়ায় ঢাকা শহর। অথচ অতীতে তাদের কাউকেই আন্দোলন-সংগ্রামের সময় খুঁজে পাওয়া যায়নি। এরা আগে কোথায় ছিল- যখন আমরা রাস্তায় মার খেতাম? এইচএম এরশাদবিরোধী আন্দোলনে, আওয়ামী লীগের দুর্দিনে, আন্দোলন-সংগ্রামে এরা কোথায় ছিল? একটার চেহারাও তো ওই সময় দেখিনি।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক হোটেল সোনারগাঁওয়ে দুই দিনব্যাপী পঞ্চম আন্তর্জাতিক এডুকেশন এক্সপো ২০১৯’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জঙ্গি দমন করেছেন। বিদ্যুৎ সমস্যার সমধান হওয়ায় বাংলাদেশ এখন আলোকিত। সর্বক্ষেত্রে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। একাত্তরের পরাজিত পাকিস্তানও এখন বাংলাদেশের উন্নয়নকে অনুসরণ করছে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা অশুভ চক্রের বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এক্ষেত্রেও সফল হবে। বাংলাদেশ থেকে দুর্বৃত্তায়নের চক্র ভেঙে দিতে হবে। তিনি বলেন, দেশের শিক্ষার মান বাড়াতে হবে। এক্ষেত্রে কোনো আপস করা যাবে না।

এর আগে ফরেন অ্যাডমিশন অ্যান্ড ক্যারিয়ার ডেভলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ফ্যাকড-ক্যাব) আয়োজনে দেশের সর্ববৃহৎ ’প্রিমিয়ার ব্যাংক আন্তর্জাতিক এডুকেশন এক্সপো’র ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন মোহাম্মদ নাসিম। পরে তিনি মেলায় বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন।

ফ্যাকড-ক্যাব’র সাধারণ সম্পাদক কাজী ফরিদুল হক হ্যাপি বলেন, এবারের আন্তর্জাতিক এডুকেশন এক্সপোতে বিশ্বের খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধির সঙ্গে কথা বলার সুযোগ, স্পট অ্যাডমিশন, বিভিন্ন সেবার ওপর বিশেষ ছাড় রয়েছে। এছাড়া বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের সরাসরি ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে ভর্তির সুযোগ থাকছে মেলায়।

২০১০ সাল থেকে এডুকেশন এক্সপোতে অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, যুক্তরাজ্য, লাটভিয়া, মালয়েশিয়া, চীন, ফিলিপাইন, নেপাল ও বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় অংশ নিয়ে আসছে।

এবারের এক্সপোতে প্রবেশের জন্য শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও দর্শনার্থীদের কোনো প্রকার ফি লাগবে না। উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশ যাওয়ার ক্ষেত্রে সঠিক নির্দেশনা দিতে ৫মবারের মতো এই এডুকেশন এক্সপো শেষ হবে শনিবার। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা চলবে। এক্সপোতে বিশ্বের প্রায় ৫ হাজার বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য পাওয়া যাচ্ছে।

উত্তরণবার্তা/এআর



বংশাই নদীতে নৌকাবাইচ

  অক্টোবর ১৫, ২০১৯

পুরনো খবর