জাতিসংঘের ভার্চুয়াল অধিবেশনে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী     ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ভিপি নুর     আবদুল মালেক বাদল ১৪ দিনের রিমান্ডে     ভারতে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যেই ফের খুলে দেয়া হলো তাজ মহল     মাতৃস্বাস্থ্য সুরক্ষা বিষয়ক বিল যথাশিগগির সম্ভব আইনে পরিণত করার পরামর্শ     প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ মুজিব : এ নেশন’স ফাদার’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেছেন     মন্ত্রিসভায় দেশের পঞ্চম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় আইনের খসড়া অনুমোদন     দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ১৭০৫, মৃত্যু ৪০    

নুসরাত হত্যা মামলার রায় ২৪ অক্টোবর

  সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯     ৩০১     ১৮:২৫     আইন-আদালত
--

উত্তরণ প্রতিবেদক: ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় হওয়া মামলার রায় হবে আগামী ২৪ অক্টোবর। দুইপক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে সোমবার জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ রায়ের জন্য এই দিন নির্ধারণ করেন।

উভয় পক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে আজ সোমবার বিচারক রায়ের এই দিন ধার্য্য করে দেন বলে পাবলিক প্রসিকিউটর হাফেজ আহমেদ ইত্তেফাককে জানান।

গত ৬ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফী পরীক্ষা দিতে গেলে তার সহপাঠী কৌশলে ছাদে ডেকে নিয়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে গুরুতর আহত করে পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫ দিন মৃত্যুর যন্ত্রণা ভোগ করে অবশেষে মারা যায়। এই ঘটনায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে করা শ্লীলতহানির মামলা তুলে না নেওয়ায় তাকে হত্যা করা হয় বলে পরিবার সূত্রের অভিযোগ।

আরও পড়ুন : দুর্নীতিবিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে : প্রধানমন্ত্রী

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফেনীর পিবিআই পরিদর্শক মো. শাহ আলম আদালতে মোট ১৬ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র জমা দেন। অভিযোগপত্রের ১৬ জন আসামী হলেন: ১. সোনাগাজীর ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলা, ২. নূর উদ্দিন, ৩. শাহাদাত হোসেন শামীম, ৪. সোনাগাজীর পৌর কাউন্সিলর মাকসুদ আলম, ৫. সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের, ৬. জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন জাবেদ, ৭. হাফেজ আব্দুল কাদের, ৮. আবছার উদ্দিন, ৯. কামরুন নাহার মনি, ১০. উম্মে সুলতানা ওরফে পপি ওরফে তুহিন ওরফে শম্পা ওরফে চম্পা, ১১. আব্দুর রহিম শরীফ, ১২. ইফতেখার উদ্দিন রানা, ১৩. ইমরান হোসেন ওরফে মামুন, ১৪. মোহাম্মদ শামীম, ১৫. মাদ্রাসার গভর্নিং বডির সহসভাপতি রুহুল আমীন ও ১৬. মহিউদ্দিন শাকিল।

এ মামলায় মোট ৯২ জনের মধ্যে ৮৭ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাদীপক্ষের আইনজীবী শাহ জাহান সাজু।

পিপি হাফেজ আহমেদ জানান, ৪৭ কার্যদিবসে এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা শেষে গত ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তিতর্ক শুরু হয়। সোমবার ছিল রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিখণ্ডনের দিন। যুক্তিখণ্ডন শেষে আদালত রায়ের দিন ঠিক করেন। এদিন ১৬ আসামির মধ্যে ১৫ জনকে আদালতে হাজির করা হয়। কামরুন নাহার মনি নামে এক আসামি বন্দি থাকা অবস্থায় বাচ্চা প্রসব করায় তাকে আদালতে হাজির করা হয়নি।

পিপি আরো জানান, ‘সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে রাষ্ট্রপক্ষ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে যে নুসরাতকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষ আশা করছে সব আসামির সর্বোচ্চ সাজা হবে।’

তবে একাধিক আসামির আইনজীবী গিয়াস উদ্দিন নান্নু ‘নুসরাত আত্মহত্যা করেছেন’ বলে দাবি করেছেন। তিনি বলেন, ‘নুসরাত আত্মহত্যা করেছেন, কিন্তু পিবিআই একে হত্যা মামলায় রূপ দিয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষ হত্যা বলে প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে এবং আসামিপক্ষ প্রমাণ করেছে নুসরাত আত্মহত্যা করেছেন।’

আইস/উত্তরণবার্তা



পুরনো খবর