লেখাপড়া করে মেধা অর্জন করতে হবে : রাষ্ট্রপতি     সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ, ভূমিদস্যু, দুর্নীতিবাজ ও মাদক ব্যবসায়ীরা সাবধান     জিসানের মুক্তির খবর ভিত্তিহীন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী     বুয়েট আন্দোলনে শিবির-ছাত্রদল সক্রিয় : তথ্যমন্ত্রী     হাজিবিস মোকাবেলায় ২৭ হাজার সেনা, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৩     উচ্চফলনশীল নতুন ধান উদ্ভাবন করলেন বাকৃবির ভিসি     ছেলে এবং মেয়ে শিশুর সমতা নিশ্চিতে বৈষম্যহীন অনুকূল পরিবেশ গড়ে তুলতে হবে     পুলিশের ৫৮ এএসপি পদোন্নতি পেয়ে অতিঃ পুলিশ সুপার হলেন    

নদীর আইনি অধিকার নিয়ে বুড়িগঙ্গায় ভাসমান সভা

  সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯     ৩১     ১৪:০১     আরও
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : বিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে শুক্রবার নদীর আইনি অধিকার নিয়ে বুড়িগঙ্গায় ভাসমান সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিআইডব্লিউটিএ’র একটি জাহাজে ‘নোঙর’ এর আয়োজনে রাজনীতিবিদ, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব, আইনজীবী, নদী ও পরিবেশবাদী সংগঠনের নেতারা সভায় অংশগ্রহণ করেন।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি। আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর এম মাহবুব উল ইসলাম, সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরশেদ, ব্যারিস্টার ফারজানা আহম্মেদ, আওয়ামী লীগ নেতা আশরাফুল ইসলাম মারুফ, এটিএন বাংলার বার্তা সম্পাদক জ. ই. মামুন, টিভি উপস্থাপক মোশারফ হোসেন, পরিবেশবিদ এজাজ আহমেদ এবং নোঙর এর সভাপতি সুমন শামস সভায় বক্তব্য রাখেন।

বেলা ১১টার দিকে সদরঘাট টার্মিনাল থেকে বিআইডব্লিউটিএ’র জাহাজ সন্ধানী ছাড়ার পর ওই জাহাজে সভা অনুষ্ঠিত হয়। নদীপথ ঘুরে বিকাল ৩টার দিকে সেটি সদরঘাটে ফিরে আসে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, নদীকে নিয়ে কিছু করার এখন সুবর্ণ সুযোগ, একটি টার্নিং পয়েন্ট। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধ একদিনে আসেনি।

দীর্ঘ সংগ্রামের ফসল মুক্তিযুদ্ধ। ঠিক তেমনি নদী রক্ষায় বর্তমান সরকার গৃহীত পদক্ষেপও দীর্ঘদিনের ফসল। এ সুবর্ণ সময়কে কাজে লাগাতে হবে। যদি এ সময়ে নদীর জন্য কিছু করতে না পারি, তবে তা উদ্ধার করা কখনই সম্ভব হবে না।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৯ সালে নদী তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছিলেন, কিন্তু ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় এসে নদীর দিকে কোনো দৃষ্টি দেয়নি।

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বাংলাদেশকে হত্যার প্রচেষ্টায় নদীসহ সবকিছু এলোমেলো করে দেয়া হয়। জিয়া, এরশাদ নদীর প্রতি যত্ন দেয়নি।

অস্ত্র ও অর্থ দিয়ে তারা যেভাবে যুবসমাজকে কলুষিত করেছিল ঠিক তেমনি নদীকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করেছিল। তিনি বলেন, নদীকে ঘিরেই সভ্যতা গড়ে উঠেছে। এ সভ্যতাকে ধরে রাখতে হবে। নদী রক্ষায় সম্মিলিত পদক্ষেপ নিতে হবে।

দল-মত নির্বিশেষে সবাইকে নদী রক্ষায় এগিয়ে আসতে হবে। নদী রক্ষায় বর্তমান সরকারের পদক্ষেপকে দেশের মানুষ স্বাগত জানিয়েছে। মিডিয়া ভ্যানগার্ড হিসেবে কাজ করছে।

নদী রক্ষার সংগঠন ‘নোঙর’ এর সভাপতি সুমন শামস বলেন, বিশ্বের সব মানবসভ্যতা গড়ে উঠেছে নদীর তীরে। এর থেকেই প্রতীয়মান হয় নদীর সঙ্গেই মানবসভ্যতা ও মানুষের অস্তিত্ব জড়িত।

তিনি আরও বলেন, আমাদের আহসান মঞ্জিল বুড়িগঙ্গামুখী। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মানুষের বসতিও গড়ে উঠেছে নদীমুখী। কিন্তু এখন বুড়িগঙ্গার দিকে পেছন দিক করে ভবন তৈরি হয়। এর থেকেই বোঝা যায়, নদীকে আমরা কোথায় নিয়ে গেছি।

তবে আশার কথা হল, মানুষ সচেতন হচ্ছে। নদী রক্ষায় আইন হয়েছে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দেশের নদ-নদীগুলো রক্ষা করা সম্ভব হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

উত্তরণবার্তা/এআর



পুরনো খবর