টানা জয়ে শেষ ষোলোর দ্বারপ্রান্তে পুতিনের রাশিয়া     মেসিতেই অনুপ্রেরণা খুঁজছে আর্জেন্টিনা     অক্টোবরে নির্বাচনকালীন সরকার, ছোট মন্ত্রিপরিষদ : সেতুমন্ত্রী     ময়মনসিংহে মাইক্রো- অটো সংঘর্ষ, নিহত ৩     প্রধানমন্ত্রীর গণসংবর্ধনা ২১ জুলাই     রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ     কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ     জাতিসংঘ মহাসচিব ও বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট ঢাকায় আসছেন    

আজ শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী

  মে ২৮, ২০১৮     ৪৫     ২:১২ অপরাহ্ণ     বিনোদন
--

উত্তরণ প্রতিবেদকঃ শিল্পচার্য জয়নুল আবেদিনের ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। বিশ্ববরেণ্য এ চিত্রশিল্পী ১৯৭৬ সালের এ দিনে মাত্র ৬২ বছর বয়সে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন।

দেশের চিত্রশিল্প আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব জয়নুল আবেদিন ১৯১৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর বৃহত্তর ময়মনসিংহে জন্মগ্রহণ করেন। আকাঁআঁকির প্রতি তার ঝোঁক ছিল ছোটবেলা থেকেই। এসএসসি পাসের পর বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে ভর্তি হন কলকাতা আর্টস স্কুল অ্যান্ড কলেজে। সেখান থেকে স্নাতক পাশ করে ঢাকায় এসে প্রতিষ্ঠা করেন ‘ইন্সটিটিউট অব আর্টস অ্যান্ড ক্র্যাপ্টস। পরে চারু ও কারুকলা কলেজ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত এ প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারু ও কারুকলা ইন্সটিটিউট নামে পরিচিত।
 

বিশ্ববরেণ্য এ চিত্রশিল্পী নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে লোকশিল্প জাদুঘর এবং ময়মনসিংহে একটি গ্যালারিও প্রতিষ্ঠা করে গেছেন।

জয়নুল আবেদিনের ১৯৪২-৪৩ সালের দুর্ভিক্ষের করুণ ছবি আমাদের হৃদয়কে ব্যাপকভাবে নাড়া দেয়। ছবির আঁকার মধ্যে দিয়ে তিনি তুলে ধরেছেন এদেশের অনাহারী, অধিকারহারা, বঞ্চিত মানুষের জীবন সংগ্রামের বাস্তবচিত্র। তার আঁকা ১৯৬৯ সালের গণ-আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে ‘নবান্ন’ এবং ১৯৭০ সালে প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড়ের ছবি আজও হৃদয়কে স্পর্শ করে।

চিত্রকলায় অসাধারণ অবদানের জন্য শিল্পাচার্য উপাধি লাভ করেন শিল্পী জয়নুল আবেদীন।

(উত্তরণ/১৪১২/আইস)



পুরাতুন খবর