প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর     তারেকসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণের আদেশ ২৭ ফেব্রুয়ারি     বাংলাদেশ সফরে আসছেন ইউনিডোর মহাপরিচালক     করোনাভাইরাস আক্রান্ত বাংলাদেশী রোগীদের চিকিৎসায় ব্যবস্থা নিয়েছে সিঙ্গাপুর     রাষ্ট্রপতির কাছে পাকিস্তানের নতুন হাইকমিশনারের পরিচয়পত্র পেশ     কক্সবাজারের সাগর তীরে উঁচু স্থাপনা নির্মাণ করা যাবে না : প্রধানমন্ত্রী     করোনা ভাইরাস নিয়ে মিথ্যা গুজবে কান দিবেন না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী     অমর একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আওয়ামী লীগের কর্মসূচি    

শেষ মুহূর্তে সস্তায় মিলছে ছোট-মাঝারি গরু

  আগস্ট ১১, ২০১৯     ৪৬     ৯:৪২ অপরাহ্ণ     আরও
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : রাত পোহালেই কোরবানির ঈদ। এখন চলছে শেষ মুহূর্তের পশু কেনাবেচা। ছোট ও মাঝারি গরুর চাহিদা সব সময় বেশি। তবে কদিন ধরে চড়া দাম থাকলেও শেষ দিনে কম দামে মিলছে ছোট-মাঝারি গরু। ক্রেতা নেই বড় গরুর।

রোববার (১১ আগস্ট) রাত ৮টায় নগরীর বৃহত্তম পশুর হাট গাবতলী ঘুরে এ চিত্র দেখা যায়।

বাজারের অধিকাংশ ছোট ও মাঝারি গরু বিক্রি হয়ে গেছে। ছোট ও মাঝারি গরু দরদাম করে কিনে নিয়ে যাচ্ছেন ক্রেতারা।

রাজধানীর মিরপুর ১৩ নম্বরের বাসিন্দা তানভীর হাসানকে প্রায় দুই থেকে আড়াই মণ ওজনের একটি লাল ষাঁড় কিনে বিজয়ীর হাসি দিয়ে হাট থেকে বের হতে দেখা যায়। তার কাছে গরুর দাম জানতে চাইলে তিনি বলেন, অন্যবারের তুলনায় এবার গরুর দাম কম। তার কেনা গরুটি দেখিয়ে বলেন এটা মাত্র ৬০ হাজার টাকায় কিনেছি। গতবার এমন আকারের গরু ৭০ হাজার টাকায় কিনেছিলাম।

পুরান ঢাকার আলু বাজারের বাসিন্দা পাপ্পু হাসান প্রায় ৭ মণ ওজনের ষাঁড় কিনেছেন ১ লাখ ৩০ হাজার টাকায়। তিনিও গরুর দাম কম বলেই জানান।

অপরদিকে কুষ্টিয়া সদরের খাজা নগর থেকে ১৮টি গরু নিয়ে গাবতলী হাটে এসেছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল আলম নামে এক খামারি। তিনি জানান, তার সব গরু বিক্রি হয়ে গেছে ইতোমধ্যে। তবে আশানুরূপ দামে বিক্রি করতে পারেননি। প্রতিদিনের খাওয়া-দাওয়া হাটের খরচ সবকিছু মিলে তার প্রায় এক লাখ ৫০ হাজার টাকা লোকসান হয়েছে।

লোকসানে গরু কেনা বিক্রি করলেন এমন প্রশ্নের জবাবে এই খামারি জানান, বিক্রি না করে বাড়ি নিয়ে গেলে আরও বেশি লোকসান হবে। কারণ অনেক ধারদেনা আছে সেগুলো পরিশোধ করতে হবে। ফেরত নিলে ট্রাক ভাড়াসহ আরও ২০ হাজার টাকা লাগবে। তাই লোকসান হলেও বিক্রি করে দিয়েছি।

অন্যদিকে হাটে বড় বড় গরু রাখার জায়গায় গিয়ে দেখা যায়, রাজাবাবু, কালো হাতি, বিগবস, যুবরাজসহ প্রায় সব বড় গরু অবিক্রীত অবস্থায় আছে কাঙ্ক্ষিত দাম না পাওয়ায়।

কালো হাতি নামে গরুর মালিক জামালপুর সদরের মো. শামসুল হক জানান, তার ৪১ মণ ওজনের গরুর দাম করা হয়েছে চার লাখ ৭০ হাজার টাকা।

তিনি আরো জানান, বীর বাহাদুর নামে বড় গরুটি মাত্র ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকায় বিক্রয় করেছেন। কারণ আগামীকাল ঈদ এবং তার গরু বাড়ি ফেরত নিয়ে যাওয়ার টাকা নেই। তাই তিনি লোকসান করেই গরুটি বিক্রি করেছেন।

উত্তরণবার্তা/এআর
 



কোটি টাকাসহ সার্ভেয়ার আটক

  ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০

বিজ্ঞাপনে সামিনা বাসার

  ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০

পুরনো খবর