পদ্মা সেতুতে বসলো ২২তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৩৩০০ মিটার     ভারতে শিরোপা জিতলো বাংলাদেশের মেয়েরা     সংসদে ৮ হাজার ঋণখেলাপির তালিকা প্রকাশ     ভোটেও চমৎকার পরিবেশ বজায় থাকবে: আইজিপি     নির্বাচনের দায়িত্ব পালনে অবহেলা করা হলে ছাড় দেয়া হবে না : সিইসি     বিএসএমএমইউয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী ও মুজিব বর্ষের বছরব্যাপী কর্মসূচি     দেশে করদাতার সংখ্যা ৪৬ লাখ ৯৩ হাজার ৯৭৮ জন : মুস্তফা কামাল     মুজিববর্ষে বিটিসিএল বিনা টাকায় টেলিফোন সংযোগ দিচ্ছে : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী    

ঈদে ১৮ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট, বৃহস্পতিবার থেকে বিনিময় শুরু

  জুলাই ৩০, ২০১৯     ৬৫     ১:০৮ অপরাহ্ণ     জাতীয় সংবাদ
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাজারে ১৮ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট বিনিময়ের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। গত রোজার ঈদে ১৭ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট বিনিময়ের ব্যবস্থা করা হয়। আগামী বৃহস্পতিবার থেকে নতুন নোট বিনিময় শুরু করবে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ ২৮টি বাণিজ্যিক ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছে, একই ব্যক্তি যাতে একাধিকবার নতুন টাকা নিতে না পারে সে জন্য এবারও বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল অফিসে বায়োমেট্রিক বা হাতের ছাপ পদ্ধতিতে তথ্য সংরক্ষণের ভিত্তিতে জনসাধারণের মাঝে নতুন নোট বিনিময় করা হবে। মূলত দালাল রুখতেই এ ব্যবস্থা রাখা হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে ১৮ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট বিনিময়ের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। গত বছরের মতো এ বছরও বায়োমেট্রিক বা হাতের ছাপ পদ্ধতিতে তথ্য সংরক্ষণের ভিত্তিতে জনসাধারণের মাঝে নতুন নোট বিনিময় করা হবে।’

এবার ১০, ২০, ৫০ টাকার পাশাপাশি ১০০ টাকার নতুন নোটও বদলে নেয়া যাবে। সে হিসেবে একজন ব্যক্তি সর্বোচ্চ ১৮ হাজার টাকার নতুন কাগুজে নোট বদলে নিতে পারবেন। তবে ২ টাকা ও ৫ টাকার নতুন নোট বিনিময়ের সুযোগ রাখা হবে না। যদিও কাউন্টার থেকে যেকোনো মূল্যমানের ধাতব মুদ্রা যতটা খুশি নিতে পারবেন। নতুন টাকা বিনিময় চলবে ৮ আগস্ট পর্যন্ত। বাংলাদেশ ব্যাংকের পাশাপাশি রাজধানীর ২৮টি বাণিজ্যিক ব্যাংকের ৩০টি ব্যাংক শাখা থেকে নতুন নোট বিনিময়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে এনসিসি ব্যাংকের যাত্রাবাড়ী শাখা, জনতা ব্যাংকের আব্দুল গণি রোড করপোরেট শাখা, অগ্রণী ব্যাংকের জাতীয় প্রেস ক্লাব করপোরেট শাখা, এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের মিরপুর শাখা, সাউথইস্ট ব্যাংকের কারওয়ান বাজার শাখা, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের বসুন্ধরা সিটি (পান্থপথ) শাখা, উত্তরা ব্যাংকের চকবাজার শাখা, সোনালী ব্যাংকের রমনা করপোরেট শাখা, ঢাকা ব্যাংকের উত্তরা শাখা, আইএফআইসি ব্যাংকের গুলশান শাখা, ন্যাশনাল ব্যাংকের মহাখালী শাখা, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের মোহাম্মদপুর শাখা, জনতা ব্যাংকের রাজারবাগ শাখা, পূবালী ব্যাংকের সদরঘাট শাখা, শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের মালিবাগ শাখা, ওয়ান ব্যাংকের বাসাবো শাখা, ব্র্যাক ব্যাংকের শ্যামলী শাখা, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড অ্যাগ্রিকালচার শাখা দক্ষিণখান, প্রিমিয়ার ব্যাংকের বনানী শাখা, ব্যাংক এশিয়ার ধানমণ্ডি শাখা, দি সিটি ব্যাংকের বেগম রোকেয়া সরণি শাখা, আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের নন্দীপাড়া শাখা, প্রাইম ব্যাংকের এলিফ্যান্ট রোড শাখা, মার্কেন্টাইল ব্যাংকের নারায়ণগঞ্জ শাখা, এক্সিম ব্যাংকের শিমরাইল শাখা, ইসলামী ব্যাংকের গাজীপুর চৌরাস্তা শাখা, ইউসিবিএলের গাজীপুর চৌরাস্তা শাখা, উত্তরা ব্যাংকের সাভার শাখা, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের সাভার শাখা এবং ট্রাস্ট ব্যাংকের কেরানীগঞ্জ শাখা।

উত্তরণবার্তা/এআর
 



পুরনো খবর