পদ্মা সেতুতে বসলো ২২তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৩৩০০ মিটার     ভারতে শিরোপা জিতলো বাংলাদেশের মেয়েরা     সংসদে ৮ হাজার ঋণখেলাপির তালিকা প্রকাশ     ভোটেও চমৎকার পরিবেশ বজায় থাকবে: আইজিপি     নির্বাচনের দায়িত্ব পালনে অবহেলা করা হলে ছাড় দেয়া হবে না : সিইসি     বিএসএমএমইউয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী ও মুজিব বর্ষের বছরব্যাপী কর্মসূচি     দেশে করদাতার সংখ্যা ৪৬ লাখ ৯৩ হাজার ৯৭৮ জন : মুস্তফা কামাল     মুজিববর্ষে বিটিসিএল বিনা টাকায় টেলিফোন সংযোগ দিচ্ছে : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী    

মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার আগস্টের মধ্যে উন্মুক্ত হবে : প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

  জুলাই ২০, ২০১৯     ৬৯     ৭:৪৯ অপরাহ্ণ     জাতীয় সংবাদ
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ বলেছেন, আগামী আগস্ট মাসের মধ্যে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উন্মুক্ত হয়ে যাবে।
তিনি বলেন, ‘আগামী মাসের মধ্যে মালয়েশিয়ায় শ্রমবাজার উন্মুক্ত হয়ে যাবে। সেখানে নতুন শ্রমিক নিয়োগও শুরু হবে। এ ব্যাপারে সে দেশের সঙ্গে কথা হয়েছে। প্রথম ধাপের কাজও শেষ হয়েছে।’
প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী আজ শনিবার দুপুরে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধীতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।
দালাল ও এজেন্টদের ব্যাপারে হুশিয়ারী উচ্চারন করে তিনি বলেন, আমার প্রথম কাজই হবে তাদেরকে ধরা, যারা অবৈধভাবে বিদেশে লোক পাঠান। এসব মৃত্যুর জন্য দালাল চক্রই দায়ী আর এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় হবে। দালালদের ব্যাপারে সজাগ থেকে তাদেরকে আইনের হাতে সোপর্দ করতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান মন্ত্রী।
ইমরান আহমেদ বলেন, আমাদের দেশের নাগরিক বিদেশে যাবার সময় মারা যাক এটা আমরা চাই না। নৌকায় করে এজেন্ট বা দালালরা বিদেশে যাবার ব্যবস্থা করে দেয়। অবৈধ পথে যারা ওদের নিয়ে যায় আর ওরা যে মারা যায় এটাকে খুন করা হিসাবেই ধরা হবে।
বিদেশে নারী শ্রমিক নির্যাতন নিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশ থেকে যারা মধ্যপ্রাচ্যে যান তারা একা হয়ে পড়েন। ভাষাগত কারনে অনেক সময় সমস্যার সৃষ্টি হয়। যে কারনে অনেকে দেশে ফিরে আসার জন্য নির্যাতনের কথা বলেন। যে কারনে প্রশিক্ষনের মাধ্যমে নারী শ্রমিক পাঠানো ব্যবস্থা করা হচ্ছে।
এর আগে মন্ত্রী টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সামাধীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। পরে বঙ্গবন্ধু ও পরিবারের নিহত সদস্যদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাত করেন। পরে বঙ্গবন্ধু ভবনে রক্ষিত মন্তব্য বহিতে স্বাক্ষর করে।
এ সময় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক মন্ত্রণালয়ের ওনার কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক গাজী জুলহাস, যুগ্ম-সচিব জাহিদ হোসেন, বোয়েসেলের নির্বাহী পরিচালক মরন কুমার চক্রবর্তী, বায়রার সভাপতি বেনজির আহম্মেদ এমপি, মহাসচিব শামীম আহমেদ চৌধুরী নোমান, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হক, সাধারন সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইলিয়াস হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উত্তরণবার্তা/দীন



পুরনো খবর